আকর্ষণীয় লড়াইয়ের অপেক্ষা

স্টাফ রিপোর্টার: ধারাবাহিকভাবে ভালো ক্রিকেট খেলতে চেয়েছিলো বাংলাদেশ। যাতে ঢাকায় ভীষণভাবে ব্যর্থ মুশফিকবাহিনী। প্রথম টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে শোচনীয় হারের স্মৃতি তাই চট্টগ্রামে ভুলতে মরিয়া বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা দলও স্বাগতিকদের কাছ থেকে প্রবল প্রতিরোধ আসবে বলে ধারণা করছে। এমনটা হলে চট্টগ্রামবাসীও দেখবে আকর্ষণীয় এক লড়াই। সিরিজ হার এড়াতে হলে অবশ্য আজ মঙ্গলবার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া দ্বিতীয় টেস্টে জিততেই হবে স্বাগতিকদের। আর এ জন্য ব্যাটসম্যানদের ওপরই ভরসা করছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। আগের ম্যাচের বাজে পারফরম্যান্সেও ব্যাটসম্যানদের ওপর আস্থা হারাননি অধিনায়ক। তার দৃঢ় বিশ্বাস ব্যাটসম্যানরা আরেকটু দায়িত্ব নিয়ে খেললে আকর্ষণীয় লড়াই হবে চট্টগ্রাম টেস্টে। ব্যাটসম্যানদেরই এ টেস্ট নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, আশাকরি আমরা সেটা পারবো। এজন্য টপ অর্ডারের কাছ থেকে একটা ভালো শুরুর প্রত্যাশা করছেন মুশফিক। শুরুতে কোনো উইকেট না হারালে পরের স্পিনাররাও খুব একটা সুবিধা করতে পারবে না।

বাংলাদেশ দলের অনুশীলনের ফাঁকে প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ জানান, দ্বিতীয় টেস্টে খেলা হচ্ছে না মার্শাল আইয়ুব ও রবিউল ইসলামের। ঢাকায় প্রথম ইনিংসে ৪০ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৫০ রানে সাজঘরে ফিরেছিলেন প্রথম তিন ব্যাটসম্যান। প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে না পারায় বাদ পড়ছেন তিন নম্বর ব্যাটসম্যান মার্শাল। তার জায়গায় দলে ফিরছেন ইমরুল কায়েস। ২০১১ সালের অক্টোবরে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন তিনি। এর আগে ইনিংস উদ্বোধন করলেও এবার তিন নম্বরে ব্যাট করবেন এইবাঁহাতি ব্যাটসম্যান। কব্জির চোটের কারণে খেলা হচ্ছে না পেসার রবিউলের। তার বদলে বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক ও অলরাউন্ডার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের যে কোনো একজন খেলবেন বলে জানিয়েছেন মুশফিক। অবশ্য পেসার রুবেল হোসেন বাদ দিয়ে এমনিতেই একজন স্পিনার খেলানোর কথা ছিলো। রবিউলের চোটের কারণে প্রথম টেস্টের ব্যর্থতা ঘোচানোর সুযোগ পেলেন রুবেল। ঢাকায় তিন পেসার নিয়ে খেললেও চট্টগ্রামে স্পিনেই নির্ভরতা খুঁজছেন মুশফিক। চট্টগ্রামে শেষ টেস্টে সোহাগ, সাকিব ভালো করেছিলো। চট্টগ্রামে উইকেট একটু স্পিন সহায়ক হয়ে থাকে। আশা করি আমাদের মূল শক্তি স্পিন স্বরূপে ফিরবে এবং সাফল্য পাবে।

Leave a comment

Your email address will not be published.