আকমলকে আটক করেছে পুলিশ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: হতে পারেন তারকা ক্রিকেটার, তাই বলে আইন-কানুনকে তো আর অবজ্ঞা করতে পারেন না। উমর আকমলের আজ কি যে হলো, লাহোরের ফেরদৌস মার্কেট এলাকায় ফট করে এক ট্র্যাফিক পুলিশের সাথে কল্পনাতীত দুর্ব্যবহার করে বসলেন। আর যায় কোথায়, এ বাজে আচরণের ‘মজা’ ভালোই বুঝিয়েছে লাহোর পুলিশ। ট্র্যাফিক পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে আকমলকে আটক করেছে স্থানীয় পুলিশ। খুলেই বলা যাক, মার্সিডিজ হাঁকিয়ে কোথায় যেন যাচ্ছিলেন। লাহোরের বাণিজ্যিক এলাকা ফেরদৌস মার্কেটের কাছে ট্রাফিক সংকেত অমান্য করলে আকমলকে থামতে বলেন কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ। এরপর পুলিশের সাথে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়লেন ২৩ বছর বয়সী পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। এক পর্যায়ে পুলিশের সাথে শুরু হলো তুমুল ধস্তাধস্তি। অতঃপর ছিঁড়ে ফেললেন পুলিশের পোশাক। ঘটনার পরপরই নিকটস্থ গুলবার্গ পুলিশ স্টেশনে তার বিরুদ্ধে এফআইআর (ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট) করা হয়েছে।  পাকিস্তান পেনাল কোডের ১৮৬, ২৭৯ ও ৩৫৩ ধারার আওতায় ট্রাফিক আইনভঙ্গ ও পুলিশের সাথে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে আকমলকে আটক করে পুলিশ।

ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা তারিক আজিজ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তিনি ট্রাফিক আইন অমান্য করেছেন। ট্রাফিক পুলিশ তাকে থামতে বললে তার (পুলিশ) সাথে ভীষণ বাজে ব্যবহার করেন। গালিগালাজ তো করেনই, একই সাথে তার জামা ছিঁড়ে ফেলেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ স্টেশনে আনা হয়েছে তাকে। আকমল অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। সাংবাদিকদের বলেছেন, পুলিশ তাকে চড় মেরেছে। সামান্য বিষয়ে দোষী সাব্যস্ত করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *