অভিষিক্ত সামির সৌজন্যে ভারতের দিন

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সবার আকর্ষণের কেন্দ্রে থাকা শচীন টেন্ডুলকার প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে ব্যাট করার সুযোগ পাননি। তবে বল হাতে এক উইকেট নিয়েছেন। ভারতেরও প্রথম দিনটা ভালোই কেটেছে। কোলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংস ২৩৪ রানে শেষ করে বিনা উইকেটে ৩৭ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে স্বাগতিক দল। আর দুই টেস্ট খেলে ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর ঘোষণা দেয়া টেন্ডুলকার প্রায় সারাদিনই মাঠে থাকায় ইডেনের দর্শকদের লাভ হয়েছে সবচেয়ে বেশি। ইতিহাসের সফলতম ব্যাটসম্যান পাদপ্রদীপের আলোয় থাকলেও দিনের সেরা খেলোয়াড় মোহাম্মদ সামি।
পশ্চিমবঙ্গের খেলোয়াড় বলে সামির প্রতি ইডেনের দর্শকদের আলাদা ‘পক্ষপাত’ থাকাই স্বাভাবিক। টেস্ট অভিষেককে স্মরণীয় করে রেখে এ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার ৭১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দিনের সেরা বোলার। টস জিতে ড্যারেন স্যামি ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিতে বিন্দুমাত্র দ্বিধা করেননি। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অধিনায়কের মুখে হাসি ফোটাতে ব্যর্থ।

ক্রিস গেইলকে স্লিপে ক্যাচ দিতে বাধ্য করা ভুবনেশ্বর কুমার একাদশ ওভারেই ‘ব্রেক থ্রু’ এনে দেন ভারতকে। ৩৪ ওভারে উদ্বোধনী জুটি ভেঙে যাওয়ার চার ওভার পর আবার ইডেনে উল্লাস। কাইরন পাওয়েলকে ফিরিয়ে জীবনের প্রথম টেস্ট উইকেটের আনন্দে মেতে ওঠেন সামি। ৪৭ রানে ২ উইকেট হারানোর পর ড্যারেন ব্রাভোকে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন মারলন স্যামুয়েলস। দুজনের ৯১ রানের জুটি স্বস্তি ফিরিয়েও এনেছিলো অতিথিদের ড্রেসিং রুমে। তবে সামি দুর্দান্ত ইনকাটারে স্যামুয়েলসকে (৬৫) বোল্ড করার পর ক্যারিবীয়রা আর পেরে ওঠেনি। স্যামুয়েলস আউট হওয়ার পরের ওভারে রান আউট হয়ে যান ড্যারেন ব্রাভো (২৩)। এরপর শিবনারায়ণ চন্দরপল (৩৬) প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও অন্য প্রান্তে উইকেট পড়েছে নিয়মিত বিরতিতে।

চা-বিরতির ঠিক আগের ওভারে টেন্ডুলকারের হাতে বল তুলে দেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। আর চতুর্থ বলেই শেন শিলিংফোর্ডকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে ইডেনের দর্শকদের আনন্দের জোয়ারে ভাসিয়ে দেন ১৯৯তম টেস্ট খেলতে নামা এ ব্যাটিং-প্রতিভা। সংক্ষিপ্ত স্কোর: ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ২৩৪ (স্যামুয়েলস ৬৫, চন্দরপল ৩৬ সামি ৪/৭১, অশ্বিন ২/৫২). ভারত প্রথম ইনিংস: ৩৭/০ (ধাওয়ান ২১*, বিজয় ১৬*)।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *