তাড়িয়ে ধরে পিটুনির পর পুলিশে দেয়া সেই ব্যক্তি সেয়ানা পাগল?

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় পিটুনির শিকার আব্দুর রাজ্জাকের উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে হাসপাতাল থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে চিকিৎসাধীন রোগী ও রোগীর লোকজন। গতপরশু রাতে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের হকপাড়ার একটি বাড়িতে ঢুকলে তাকে তাড়িয়ে ধরে পিটুনির পর পুলিশে দেয়া হয়। পুলিশ তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর লোকজন এ তথ্য দিয়ে বলেন, ভর্তি করিয়ে পুলিশ ফিরে গেলে সকাল হতে না হতে ওই ব্যক্তি উৎপাত শুরু করে। ফলে রোগীর লোকজন তাকে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা হকপাড়ার ইকবাল বকুল স্বপনের বাড়িতে গতপরশু রোববার দিনগত রাতে একজন প্রবেশ করে। তাকে তাড়িয়ে ধরা হয়। ধরাপড়া ব্যক্তি পিটুনির সময় পরিচয় দিতে গিয়ে বলে, নাম- আব্দুর রাজ্জাক। পিতার নাম হারুন ব্যাপারী। বাড়ি খুলনার তুৎপাড়ায়। বয়স আনুমানিক ৩৮ বছর। পিটুনির পর তাকে তুলে দেয়া হয় পুলিশের হাতে। টহল পুলিশ তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ সময় আব্দুর রাজ্জাক উম্মাদের মতো আচরণ করে। পুলিশ তাকে পাগল বলে আখ্যা দিয়ে জানায়, কেউ মামলা না করলে হাতে হাতকড়া পরানো হবে না। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে আব্দুর রাজ্জাক অবশ্য ঠিকানা দিতে গিয়ে বলে, তার বাড়ি বাগেরহাটের রামপালে।

হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে পুলিশ ফিরে যায়। সকাল হতে না হতে ওই ব্যক্তি উদ্ভট আচরণ করে রোগী ও রোগীর লোকজনকে অতিষ্ঠ করে তোলে। দৃশ্য দেখে কেউ বলে সিয়ানা পাগল পার পাওয়ার চেষ্টা করছে। কেউ বলে, ওকে রাখলেই ঝামেলা বাড়বে। এক পর্যায়ে তাকে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়া হয়। এরপর দ্রুত এলাকা ত্যাগ করে ওই ব্যক্তি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *