দেশের টুকিটাকি : বাংলালিংক অফিস ‘ছুটি’ ঘোষণা

বাংলাদেশকে পোলিও নির্মূলের স্বীকৃতি সনদ জাইকার
স্টাফ রিপোর্টার: পোলিও নির্মূলে সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশকে সনদ দিয়েছে জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা)। গতকাল রোববার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জাইকার বাংলাদেশের প্রধান মিকিও হাতায়েদা মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের হাতে এই সনদ তুলে দেন। অনুষ্ঠানে জাইকাকে ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, পোলিওমুক্ত বাংলাদেশ গড়ায় তারা এই সার্টিফিকেট দিয়েছে। পোলিও নির্মূলে যারা মাঠ পর্যায়ে অবদান রেখেছেন তাদেরও এ সময় ধন্যবাদ জানান তিনি। স্থাস্থ্য খাতে বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে দাবি করে মন্ত্রী নাসিম বলেন, জাপানের সাথে আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাবে। অনুষ্ঠানে তিনি জানান, ২০০৬ সালের ২২ নভেম্বরের পর বাংলাদেশে ‘ওয়াইল্ড পোলিওভাইরাসের’কোনো সংক্রমণ ঘটেনি। স্থাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রায় ৮ বছর পোলিওমুক্ত থাকার পর ২০১৪ সালের ২৭ মার্চ বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১১টি সদস্য দেশকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘পোলিওমুক্ত’ ঘোষণা করে।

বাংলালিংক অফিস ‘ছুটি’ ঘোষণা
স্টাফ রিপোর্টার: কর্মী ছাঁটাই করার জের ধরে রোববার দেশের সকল বাংলালিংক অফিস ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে গ্রাহক সেবা কেন্দ্র এবং কল সেন্টার খোলা থাকবে। বাংলালিংকে কর্মরত ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকসন্স ডিপার্টমেন্টের প্রধান প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম ভুঁইয়াকে ট্রেড ইউনিয়ন করার অপরাধে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাকরিচ্যুত করা হয়। এর জেরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশান-১ এলাকায় অবস্থিত বাংলালিংকের প্রধান কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় চিফ টেকনিক্যাল অফিসার (সিটিও) তেরিহান এলহামি (মিশরের নাগরিক) কে দুই শতাধিক কর্মী অবরুদ্ধ করে রাখেন। রোববার বৈঠক করে শরিফুল ইসলামের চাকরিচ্যুতির বিষয়টি বিবেচনার আশ্বাস দেয়ার পর ওই দিন গভীর রাতে আন্দোলনকারীরা অবস্থান তুলে নেন।

বুথে জালিয়াতি : ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাংক গ্রাহকেরা ক্ষতিপূরণ পাবেন
স্টাফ রিপোর্টার: কার্ডের তথ্য জালিয়াতির ঘটনায় যেসব ব্যাংক গ্রাহকের টাকা তুলে নেয়ায় হয়েছে প্রয়োজনীয় যাচাই-বাছাই শেষে সেসব গ্রাহকের টাকা ফেরত দেবে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জালিয়াতরা ছয়টি বুথে ‘স্কিমিং ডিভাইস’ ও ভিডিও ক্যামেরা বসিয়ে রেখেছিলো, যার মাধ্যমে তারা বুথে ঢোকানো কার্ডের তথ্য ও পিন নম্বর জেনে গেছে। এরপর ডুপ্লিকেট কার্ড তৈরি করে তারা টাকা তোলার কাজটি সেরেছে। ইবিএল কর্তৃপক্ষ বলেছে, তাদের গুলশান এলাকার দুটি বুথ থেকে এভাবে গ্রাহকের তথ্য চুরির প্রমাণ তারা পেয়েছে। প্রাথমিকভাবে অভিযোগকারী গ্রাহকদের ২১টি কার্ড বন্ধ করা হলেও পরে ওই দুটি এটিএম বুথে ব্যবহার করা সব কার্ডই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *