সরকারীভাবে পাট কেনার দাবিতে গাংনীতে ওয়ার্কার্স পার্টির স্মারকলিপি

 

গাংনী প্রতিনিধি: আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি ও প্রতিকল আবহাওয়ার কারণে প্রতি বছরই বৃদ্ধি পাচ্ছে পাট চাষের খরচ। কিন্তু বাড়ছে না পাটের মূল্য। চাষে যে খরচ হচ্ছে পাট বিক্রিতে খরচই উঠছে না। এরই মাঝে রয়েছে মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য। ফড়িয়া ও মহাজনদের হাত ঘুরে পাট বিক্রি হওয়ায় কাঙ্ক্ষিত মূল্য থেকেও বঞ্চিত হচ্ছেন কৃষক। তাই পাটের নায্যমূল্য নিশ্চিতসহ সরকারিভাবে পাট কেনার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পাটি। গতকাল রোববার দুপুরে পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী বরাবার পাটের নায্যমূল্যের দাবি সংবলিত একটি স্মারকলিপি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ-উজ-জামানের হাতে তুলে দেন ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ। স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়েছে, পাটের ন্যূনতম মূল্য প্রতিমণ ৩ হাজার ২৫০ টাকা, ভেজালমুক্ত সার ও কীটনাশক এবং এর বর্তমান দরের অর্ধেক কমানো, জ্বালানি তেলের দাম কমানো এবং দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে ভূমিকা রাখার দাবি জানানো হয়। ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আব্দুল মাবুদের নেতৃত্বে স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কমরেড হাশেম আলী, কমরেড তৈয়ব আলী, কমরেড মজনুল হক, কমরেড আরোজ আলী ও কমরেড আজিজুল হকসহ নেতৃবৃন্দ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *