৫ দিনের ব্যবধানে দিনদুপুরে আলমডাঙ্গা শহরে ৪টি দুঃসাহসিক চুরি

চাকরিজীবী দম্পতির মানবশূন্য বাড়িগুলো চুরির জন্য চোরদলের টার্গেট

 

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গা শহরের থানার কয়েক’শ মিটারের মধ্যে দিনদুপুরে গতকাল আবারও দুঃসাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে। গত ৫ দিনের ব্যবধানে দিনদুপুরে শহরের ৪টি চুরি ঘটনায় শহরবাসী চরম আতঙ্কের মধ্যে দিনযাপন করছেন। বেপরোয়া একটি চোরচক্র খোদ শহরের প্রতিদিন দিনের আলোই একের পর এক অঘটন ঘটিয়ে চললেও পুলিশের নিষ্পৃহ ভূমিকায় মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে।

জানা গেছে, গতকাল রোববার দুপুরের পর আলমডাঙ্গা বাবুপাড়ার আজিজুল হকের বাড়িতে দুঃসাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে। মানুষশূন্য ঘরের পেছনের গ্রিল কেটে চোরদল ঘরের ভেতর প্রবেশ করে সাড়ে ৬ ভরি সোনার গয়না, নগদ ১১ হাজার টাকা, দামি কাপড়-চোপড় ও জমির দলিলপত্র নিয়ে গেছে। আজিজুল হক চুয়াডাঙ্গা জর্জ কোর্টের সেরেস্তাদার। তিনি দিনের বেলায় বাড়িতে অনুপস্থিত থাকেন। তার স্ত্রী ঢাকায় অবস্থান করছেন। এ সুযোগে বাড়ি মানুষশূন্য পেয়ে সহজেই চুরি করে চোরচক্র সটকে পড়ে।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে আলমডাঙ্গা পৌরসভার মাদরাসাপাড়ার নাসির উদ্দিনের ঘরের গ্রিল কেটে ভেতরে ঢুকে চোরচক্র সোনার গয়নাসহ নগদ টাকা পয়সা নিয়ে যায়। ওই সময় গৃহকর্তা ও তার স্ত্রী চাকরিসূত্রে বাইরে অবস্থান করছিলেন। ফাঁকা বাড়িতে চুরি শেষে নিরাপদেই চোরচক্র মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে।

অন্যদিকে, এ চুরির ঘটনার ২৪ ঘন্টা পূর্বে গত বুধবার শহরের কোর্টপাড়ায় দিনদুপুরে ঘরের গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে অনুরুপে সোনার গয়নাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায়।

তাছাড়া শহরের কালিদাসপুর গ্রামে নজরুল ইসলাম বিশ্বাসের বাড়িতেও গত বৃহস্পতিবার একইভাবে ঘরের পেছনের গ্রিল কেটে চোরদল ঘরে প্রবেশ করে। ওই সময় শিক্ষকতারসূত্রে নজরুল ইসলাম বিশ্বাস দম্পতি বাড়ির বাইরে অবস্থান করছিলেন। ৬ ভরি সোনার গয়নাসহ বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল নিয়ে গেছে চোরচক্র বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

চাকরিজীবী দম্পতির বাড়িগুলো চুরির জন্য চোরের দল টার্গেট করছে। চাকরিসূত্রে দুজনই বাড়ির বাইরে অবস্থান করার সুযোগ নিয়ে ওই সকল বাড়িতে দিনদুপুরে চুরির ঘটনা ঘটানো হচ্ছে।

দিনদুপুরে শহরে প্রায় প্রতিদিন এমন দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটে চললেও পুলিশের চুরি প্রতিরোধে কোনো তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। এতোগুলো চুরি সংঘঠিত হলেও এখনো পর্যন্ত পুলিশ কাউকেই গ্রেফতার করেনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *