৪৩ বছরেও চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামে দু কিলোমিটার পাকা রাস্তা না থাকায় জনগণের দুর্ভোগ চরমে!

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়নের জালশুকা থেকে ফুলবাড়ি হয়ে ছয়ঘরিয়া সংযোগ সড়ক পর্যন্ত দু কিলোমিটার রাস্তা স্বাধীনতার ৪৩ বছরেও কেউ উন্নয়নের উদ্যোগ নেয়নি। দর্শনা কেরু অ্যান্ড কোম্পানি তাদের আখ পরিবহনের জন্য গ্রামের মাঝামাঝি পর্যন্ত হেরিং বন্ড বন্ড রাস্তা তৈরি করলেও বর্তমানে তা চলাচলের প্রায় অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এ সড়ক দিয়ে চলতে গিয়ে গতকাল মঙ্গলবার গরুভর্তি ট্রাক উল্টে দুটি গরু মারা গেছে। এছাড়া ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ফুলবাড়ি গ্রামের বাসিন্দাদের অভিযোগ বিগত সময়ে প্রতিটি ভোটের আগে প্রার্থীরা ওই রাস্তার উন্নয়ন করার ঘোষণা দিলেও কেউ কথা রাখেননি। এমনকি নির্বাচিত হওয়ার পর গ্রামটিকে জনপ্রতিনিধিদের সেভাবে পদধুলি পড়েনি। এতে গ্রামবাসীরা চরম ক্ষুব্ধ হয়েছেন। বিশেষ করে গতকালের দুর্ঘটনায় গরুর প্রাণহানির ঘটনায় গ্রামবাসী অনেকটা ফুসে উঠেছেন।

গরুব্যবসায়ী ফরজ আলী, শাহবুদ্দীন, হাশেম আলীসহ অনেকেই বলেন, এ রাস্তাটি চওড়া করে পাকা করা গেলে এভাবে দুর্ঘটনা ঘটতো না। এ দুর্ঘটনার কারণে গ্রামের অনেকেই নিঃস্ব হয়ে গেলো। ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদসহ বিভিন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণকারীরা বারবার প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচিত হওয়ার পর আর কেউ খোঁজ খবর রাখে না।

গ্রামবাসীরা এজন্য চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। একই সাথে উল্লেখিত রাস্তা নির্মাণে তার আশু উদ্যোগ কামনা করেছেন।

জানতে চাইলে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী রফিক খান জানান, ফুলবাড়ি সড়কের বিষয়টি কেউ ধারণা দেয়নি। বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে সম্ভাব্য যা কিছু করার তাই করা হবে। সদর উপজেলা প্রকৌশলী ফজলুর রহমান জানান, ফুলবাড়ি গ্রামের হেরিংবন্ড রাস্তাটির প্রকৃত মালিক কারা তা জানা নেই। তবে পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে জানানো যাবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *