হরতালের পক্ষে-বিপক্ষে মিছিল : গাড়ি ভাঙচুর ককটেল বিস্ফোরণ

চুয়াডাঙ্গা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল মেহেরপুরে হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়ে প্রচারপত্র বিতরণ

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: আজ শনিবার থেকে শুরু হওয়ার বিএনপির টানা ৬০ ঘণ্টার হরতালের পক্ষে-বিপক্ষে বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতে পাল্টাপাল্টি মিছিল সমাবেশ করেছে উভয়জোট। চুয়াডাঙ্গা বিএনপি মিছিলের সামনে গতকালও পুলিশ বাধা হয়ে দাঁড়ায়। আওয়ামী লীগ অবশ্য গতকাল মিছিল করেনি। মেহেরপুরে হরতাল সমর্থনের আহ্বান জানিয়ে গণসংযোগ করা হয়েছে। ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পাল্টা পাল্টি মিছিল করলেও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। দর্শনায় বিএনপির একাধিক পক্ষ মিছিল করেছে। জীবননগের রাজপথও ছিলো আন্দোলকারীদের পদচারণায় উত্তপ্ত।

জানা গেছে, গাজীপুরে হরতাল সমর্থনকারীরা একটি ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও একটি টেক্সিক্যাবে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। ন্ধ্যায় গাজীপুরে চান্দনা চৌরাস্তায় তিনটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা। গাইবান্ধায় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের ৫টি মোটর সাইকেল ভাঙচুর ও ৩টি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে জামায়াত-শিবির ক্যাডাররা। গোবিন্দগঞ্জের বাসুদেবপুর বাজারে শনিবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের ৫টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও ৩টি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে জামায়াত-শিবির ক্যাডাররা। নেত্রকোনায় ৮/১০টি টেম্পো এবং ময়মনসিংহগামী একটি অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর করে মিছিলকারীরা।

নগরীর লাভলেইন মোড়ে বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণ করা হয়েছে। পাবনার কাশীনাথপুরে শনিবার সন্ধ্যায় ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগের অফিসসহ ১০টি দোকান ভাঙচুর ও কমপক্ষে ১৫টি বাসে ভাঙচুরসহ ২০টি দোকান জ্বালিয়ে দেয়া হয়। এ সময় দু গ্রুপের ১০ নেতাকর্মী আহত হয়।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে বেগম খালেদা জিয়ার ডাকে ৬০ ঘণ্টা হরতালের সমর্থনে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপি মিছিল বের করে। গতকাল জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে বিকেল সাড়ে ৪টায় মিছিলটি বের হয়ে চুয়াডাঙ্গা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

হরতালের মিছিল শেষে একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে সামনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম জেনারেল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ওয়াহেদুজ্জামান বুলা, পৌর বিএনপির সভাপতি সহিদুল ইসলাম রতন, সাধারণ সম্পাদক মজিবুল হক মালিক মজু, থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মন্টু, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুস সালেহীন লিটন, আসাদুজ্জামান, আয়ুব মল্লিক, গোলাম মোস্তফা বিমান, রবিউল ইসলাম লিটন, শাহাদৎ হোসেন মাস্টার, অধ্যাপক আতিয়ার রহমান, এমএ সাঈদ, নজরুল ইসলাম, ফারুক আহম্মেদ, বাদশা শেখ, মহিদুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার মুন্সি, শাহ নেওয়াজ কালু, জেলা যুবদলের আশরাফ বিশ্বাস মিল্টু, মখলেছুজ্জামান মোখলেছ, মুকুল জোয়ার্দ্দার, তৌফিকুজ্জামান তৌফিক, আতিয়ার রহমান লিটন, গোলাম কিবরিয়া তিস্তা, এসকে হাদী, আরিফুজ্জামান পিন্টু, জাসাস সভাপতি শহিদুল হক বিশ্বাস, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক এমএ তালহা, যুগ্মআহ্বায়ক রাজিব খান, সুজন মালিক, আব্দুল মোমিন, জেলা ওলামাদলের সভাপতি মো. ফজলুর রহমান, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান কল্যাণ পরিষদের সভাপতি সুশিল কুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক স্বাধীন অধিকারী প্রমুখ।

নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ১৮ দলীয় জোটের টানা তিন দিনের হরতালের সমর্থনে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপর একাংশের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমবাশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বিকেল ৪টায় কোর্ট মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় কোর্ট মোড়ে শেষ হয়। পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করে। চুয়াডাঙ্গা পৌর বিএনপির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মনির সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুল হালিম হিরু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক  হাসান ঈমাম বকুল, যুগ্মসম্পাদক মাহমুদদুল হক পল্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক রওউফুন নাহার রীনা, দফতর সম্পাদক আবু আলা সামসুজ্জামান ক্রীড়া সম্পাদক আব্দুস সালাম, জেলা স্বেচ্ছাসবক দলের আহ্বায়ক হাজি আব্দুল মান্নান, জেলা ওলামাদলের আহ্বায়ক মাও. আনোয়ার হোসেন, জেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক শাহাজাহান খান, আলুকদিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ইবাদত হোসেন। সমাবেশে বক্তারা আগামী তিনদিনের হরতাল শান্তিপূর্ণভাবে পালনের জন্য জেলা বাসমালিক সমিতি ও দোকান মালিক সমিতিসহ সকল প্রকার যানবাহন ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান সমূহকে বন্ধ রেখে হরতালে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক লাল্টু, সামসু জেলা যুবদলের সদস্য আরিফ মোবাসহ আরো অনেকে।

অপরদিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অর্থবিষয়ক সম্পাদক চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী জাহাঙ্গীর আলমের উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ মিছিলটি কোর্টমোড়ে দলীয় কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আরশেদ আলী কালু, জেলা মৎস্যজীবীদলের সভাপতি ওহিদুল ইসলাম ওহিদ, সাধারণ সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ, জেলা বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলা প্রমুখ।

দামুড়হুদা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হরতাল সফল করার লক্ষ্যে ১৮ দলীয় সংগ্রাম কমিটির নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ১৮ দলীয় সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক উপজেলা বিএনপির সভাপতি লিয়াকত আলী শাহ, যুগ্মআহ্বায়ক তোফাজ্জেল হোসেন, রফিকুল হাসান তনু ও দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন জামায়াতের আমির প্রভাষক শরীফুল আলম মিল্টনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি ব্রিজরোডস্থ সোনালী ব্যাংকের সামনে  থেকে শুরু হয়ে উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। উপজেলা যুবদলের সভাপতি জেলা যুবদলের যুগ্মআহ্বায়ক মোকাররম হোসেন, সদর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আ. রহমান মালিথা, হাউলী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আ. ওয়াহেদ, সহসভাপতি পিয়ার আলী, উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির মাও. আব্দুস সাত্তার, সদর ওয়ার্ড জামায়াতের আমির হাজি শহিদুর রহমান, বিএনপি নেতা মোজাম্মেল হক, একরামুল মেম্বার, আব্দুল গনি, জামাল হোসেন, আলম, ইছাহক আলী, জামায়াত নেতা মতিয়ার রহমান, আনছার আলী, আবু বকর, মহব্বত আলী, মধু, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি আব্দুর রহিম, সাধারণ সম্পাদক মন্টু মিয়া, যুবদল নেতা শামসুল প্রমুখ। শেষে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তরা ১৮ দলীয় জোটের ডাকা আজ রোববার থেকে টানা ৬০ ঘণ্টার তিনদিন হরতাল সফল করার লক্ষ্যে সমস্ত ব্যবসায়ীভাইদের দোকান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান এবং সকল নেতামর্কীকে রাজপথে থাকার আহ্বান জানান।

মহেশপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ঝিনাইদহের মহেশপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে হরতালবিরোধী মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে মহেশপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিস চত্বর থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ময়জুদ্দীন হামীদের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগ অফিস চত্বরে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ঝিনাইদহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শফিকুল আজম খান চঞ্চল। বক্তব্য রাখেন এসবিকে ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল ইসলাম সাজ্জাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক কাজী আব্দুস সাত্তার, জেলা কৃষকলীগের সহসভাপতি শরিফুল ইসলাম শরিফ, মাও. হাবিবুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রশিদ খান, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আজিজুল হক আজা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি রফিকুল আজম খান বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক মুনজুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি এমএ আসাদ, সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান জিয়া, পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আলমগীর কবির প্রমুখ।

জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, সরকার পতনের আল্টিমেটাম দিয়ে ১৮ দলীয় জোট ঘোষিত আজ রোববার থেকে টানা ৩ দিনের হরতাল সফল করতে গতকাল শনিবার বিকেলে জীবননগর শহরে ১৮ দলীয় জোট, বিএনপি, জামায়াত, শিবির ও বিএনপি বাবু খান গ্রুপ বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বর্তমানে অবৈধ এ সরকার পতনে হরতাল সফল করতে সকালের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান হয়। বিকেলে উপজেলা বিএনপির বাবু খান গ্রুপের উদ্যোগে শহরে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। সাবেক পৌর কাউন্সিলর বিএনপি নেতা আব্দুর রশিদ ও কাউন্সিলর কাজি নাসির ইকবাল ঠাণ্ডুর নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। শেষে উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে হরতাল সফল করে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের পতনের ডাক দিয়ে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা সাবেক পৌর কাউন্সিলর আব্দুর রশিদ, কাজি নাসির ইকবাল ঠাণ্ডু, শফিউদ্দিন, কামরুল ইসলাম, আব্দুল রাজ্জাক, লিটন মিয়া, যুবদলের আব্দুল আলিম, ইঊনূছ আলী, ইউপি মেম্বার বজলুর রহমান টুটু, মিনাজউদ্দিন, আলফাছ উদ্দিন, আজিমুল, মিজানুর, সবুর, ছাত্রদলের আনোয়ার হোসেন, সারেয়ার হোসেন, সাইদুল ইসলাম প্রমুখ।

১৮ দলীয় জোটের ব্যানারে জীবননগর পৌর বিএনপি, পৌর জামায়াত ও পৌর ছাত্রশিবির হরতারের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। পৌর বিএনপি সভাপতি সাহজাহান কবীর, সাধারণ সম্পাদক মাহতাব উদ্দিন, উপজেলা জামায়াত সেক্রেটারি মাও. ইসরাইল হোসেন, উপজেলা ছাত্রশিবির সভাপতি ফারুক হোসেন ও পৌর ছাত্রশিবির সভাপতি ফিরোজ হোসেনের নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিল শেষে আখ সেন্টারের সামনে দুর্বার আন্দোলন ও হরতালের মাধ্যমে অবৈধ এ সরকারকে পতনের ডাক দিয়ে বক্তব্য রাখেন পৌর বিএনপি সভাপতি সাহজাহান কবীর, সাধারণ সম্পাদক মাহতাব উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হাসান, পৌর ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি পৌর কাউন্সিলর নবী শাহ্, উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর সহসেক্রেটারি ইব্রাহিম খলিল প্রমুখ।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে, তিনদিনের হরতালের সমর্থনে দর্শনায় বিএনপির দু পক্ষ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। গতকাল শনিবার বিকেলে (কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা নেতা বাবু খান সমর্থিত পক্ষ) দর্শনা রেলবাজার থেকে পুরাতন বাজার মোড় পর্যন্ত মিছিল করে। পুলিশের বাধার মুখে মিছিল ফিরে অংকুর আদর্শ বিদ্যালয় চত্বরে করেছে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ। বিএনপি নেতা আজিজুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দর্শনা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম, পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ, বিএনপি নেতা সেলিম উদ্দিন, আনোয়ার গাজি, আশরাফুল ইসলাম, হাসেম, দর্শনা পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাহারুল ইসলাম শিক্ষক, যুবদল নেতা আনোয়ার হোসেন, বদিয়ার মোল্লা, আবু সাঈদ, টুটুল শাহ, হাসান, নাসির উদ্দিন, শহিদুল, সজিব, বিল্লাল, মোতালেব, অপু, সিরাজ, পিয়ার, আরুক, মাহাবুল, ছাত্রদল নেতা জাহান আলী, শিমুল, আরাফাত, জাকির, হাসান, সজিব, সোহান, জসিম প্রমুখ। একই সময় দর্শনা পৌর বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের আয়োজনে বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান বুলেটের নেতৃত্বে মিছিল বের করা হয়। উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা ইকবাল হোসেন, কাউন্সিলর ফারুক হোসেন, সরাজ, তোতা, মোমিনুল, ডাবলু, সেলিম, আলাল, নাজিম, বাব, আনারুল, আমজাদ, আতিকুল, বকুল, মাসুম, আরেফিন, আশু, ছাত্রদলনেতা বাবুল আক্তার, সোহেল, ব্রাইট, জনি, মাসুম, রানা প্রমুখ।

এ দিকে বিএনপি নেতা (ইঞ্জিনিয়ার মোখলেসুর রহমান তরফদার টিপু সমর্থিত) দর্শনা পৌর বিএনপির একাংশ দর্শনা পুরাতন বাজার থেকে একটি মিছিল বের করে রেলবাজারের উদ্দেশে যাওয়ার পথে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। মিছিল ফিরে পুরাতন বাজার মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেছে। আলোচনা করেন পৌর বিএনপির সভাপতি রহম আলী, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম খোকন, যুগ্মসম্পাদক আব্দুল মান্নান, বিএনপি নেতা লুতফর রহমান, আ. হান্নান, আ. কাদের, খায়রুল, রফিকুল আলম, নজির, জহুরুল ইসলাম, যুবদল নেতা নাসির উদ্দিন খেদু, মহিদুল ইসলাম, শহিদুল মোল্লা, সাফি, মিরাজ হোসেন, সোহেল তরফদার, সাত্তার, তারিক, জলিল, ছাত্রদল নেতা রাজ, সুজন, মনির, রাজু, আনোয়ার, মসলেম প্রমুখ।

ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, আজ হরতালের সমর্থন, সারাদেশে ৬ কর্মী খুন ও গণগ্রেফতারের প্রতিবাদে ঝিনাইদহে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি। গতকাল শনিবার সকাল থেকে খণ্ডখণ্ড মিছিল নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীরা শহরের ওয়াজির আলী হাইস্কুল মাঠে সমবেত হন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের এইচএসএস সড়ক থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মসিউর রহমান। শহরের পোস্ট অফিস মোড়ে সমাবেশ করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মসিউর রহমান, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, যুগ্মসম্পাদক অ্যাড. এমএ মজিদ, বিএনপি নেতা জাহিদুজ্জামান মনা, মুন্সী কামাল আজাদ পান্নু, আক্তারুজ্জামান, আব্দুল মজিদ বিশ্বাস, আশরাফুল ইসলাম পিন্টু প্রমুখ।

হরিণাকুণ্ডু প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হরতাল সমর্থনে হরিণাকুণ্ডু বিএনপি বিকাল ৪টায় শহরে হরতাল সফল করার লক্ষ্যে মিছিল বের করে। বাসস্ট্যান্ড মোড় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রিয়নাথ হাই স্কুলমাঠে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপি নেতা জিন্নাতুল হক খাঁন, তাইজাল হোসেন, মতিয়ার রহমান, আজিজুল হক, সরোয়ার মণ্ডল, বসির উদ্দিন, আব্দুল মমিন, রবিউল ইসলাম, জামাল উদ্দিন, আব্দুস সামাদ, আকতারুজ্জামান, শফি উদ্দিন, প্রমুখ।

অন্যদিকে হরতালের নামে দেশব্যাপি বিরোধীদলের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগ বিকেল ৫টায় একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি দোয়েল চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবারো দোয়েল চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন পৌর মেয়র শাহিনুর রহমান রিন্টু, আমিরুজ্জামান পলাশ চৌধুরী, কামাল হোসেন, ছাত্রনেতা রাজু আহম্মেদ, রিগ্যান আলী প্রমুখ।

কালীগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হরতাল সফল করার লক্ষ্যে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহরে লিফলেট বিতরণ করেছেন সাবেক এমপি শহীদুজ্জামান বেল্টু। গতকাল সকালে কালীগঞ্জ শহরের দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নিমতলা বাসস্ট্যান্ড, কলেজরোড, মহিলা কলেজ রোড, মিলগেট, বারবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে লিফলেট বিতরণ করা হয়। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন থানা বিএনপির সহসভাপতি আলাউদ্দীন আলা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তবিবুর রহমান মিনি, জেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক ইলিয়াস রহমান মিঠু, ছাত্রনেতা মখসুদুলমমিন, মিশন প্রমুখ। পরে বারবাজারে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি শহীদুজ্জামান বেল্টু বলেন, আওয়ামী লীগ সুষ্ঠু নির্বাচনকে ভয় পায়। তাই তারা নিজেদের অধীনে নির্বাচন করতে চায়। সরকারকে ক্ষমতা ছেড়ে দিয়ে অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, কেন্দ্র ঘোষিত ১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৬০ ঘণ্টার হরতাল সফল করতে মেহেরপুর ১৮ দলীয় জোট নেতারা শহরের দোকান পাটসহ বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন। মেহেরপর-১ আসনের সাবেক এমপি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে জোট নেতারা দোকানপাট বন্ধ রাখার জন্য তাদের আহ্বান জানান। তারা মেহেরপুর মোটরশ্রমিক নেতৃবৃন্দের সাথেও কথা বলেন। মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে গণসংযোগে জেলা বিজেপি আহ্বায়ক শেখ সাঈদ আহমেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, পৌর সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব মাহবুবুর রহমান, বিএনপি নেতা ফজলু খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *