স্মার্টফোনের বিপনন নিয়ে গ্রামীন ফোনের প্রতারণা

 

স্টাফ রিপোর্টার: আবারও মোবাইল হ্যান্ডসেট বিপনন নিয়ে গ্রাহকদের সাথে  প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইলফোন অপারেটর কোম্পানি গ্রামীনফোনের বিরুদ্ধে ।

সম্প্রতি থ্রিজি লাইসেন্স পাওয়ার পর গ্রামীনফোন থ্রিজি সুবিধা সমৃদ্ধ ম্যাক্সিমাস ব্রান্ডের ম্যাক্স-৯০৭ মডেলের যে হ্যান্ডসেট বাজারে ছেড়েছে ওই মোবাইলফোনের প্যাকেটে লেখা ফিচারের সাথে সেটের ফিচারে কোনো মিল নেই। একাধিক গ্রাহক এ অভিযোগ জানিয়ে বলেছেন, থ্রিজি সেবা সারাদেশে চালু করার আগেই গ্রামীনফোন যে প্রতারণা করেছে তাতে তাদের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে আমরা সন্দিহান।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে ম্যাক্সিমাস ব্রান্ডের, ম্যাক্স-৯০৭ মডেলের এন্ড্রোয়েড সেটের প্যাকেটের গায়ে লেখা আছে ইন্টারনাল মেমোরি ৪ গিগাবাইট এবং ৱ্যাম ২ জিবি। অথচ, মোবাইলফোন চালু করে তার ভেতরের অপশনগুলো থেকে এটিতে ইন্টারনাল মেমোরি ১০০ মেগাবাইটেরও কম এবং ৱ্যাম মাত্র ২৫৬ মেগাবাইট পাওয়া গেছে। স্মার্টফোন সম্পর্কে সামান্য ধারণা না থাকা ক্রেতার এক্ষেত্রে প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ। চুয়াডাঙ্গা শহরে স্মার্টফোন ব্যবহারের দিক থেকে প্রথম ব্যবহারকারীদের একজন মালোপাড়ার তরিকুল ইসলাম সোহেল। তিনি জানান, উচ্চ মূল্যের ব্র্যান্ডেড এন্ড্রোয়েড সেটেই অনেক সময় ২ জিবি ৱ্যাম সংযুক্ত থাকে না। সেক্ষেত্রে গ্রামীনফোন কর্তৃক সরবরাহ করা ম্যাক্সিমাস ব্রান্ডের এ সেটে তা থাকবে? ভাবাই যায় না। তিনি গ্রামীনফোন কর্তৃপক্ষকে এ মোবাইলফোনের সঠিক ফিচার প্রকাশ করে বাজারে ছাড়ার আহবান জানান।

এর আগে স্বল্পমূল্যে সিম্ফনি বি-টু আই নামে একটি হ্যান্ডসেট বাজারে নিয়ে আসে গ্রামীনফোন। ওই ফোনে ভিডিও ফাইল দেখা যাবে উল্লেখ করে বিক্রি করা হলেও ব্যবহারকারীরা সে সুবিধা পাননি। এ ব্যাপারে বিস্তর অভিযোগ জমা হলে গ্রামীনফোন সব দায়ভার সিম্ফনি মোবাইলফোন কোম্পানির ওপর চাপিয়ে দিয়ে সে যাত্রায় পার পায়। এবার অধিকাংশ গ্রাহকের কাছেই নতুন বিষয় এন্ড্রয়েড সেটের ক্ষেত্রেও তেমনটাই হবে বলে আশঙ্কা ক্রেতা-বিক্রেতা সকলের। অবিলম্বে এ সমস্যা সমাধানে সংশ্লিস্ট কোম্পানির কার্যকর ভূমিকা আশা করেছেন তারা। তা না হলে নিম্নমানের এ মোবাইলফোন কিনে প্রতারিত হবার সম্ভবনা থেকেই যাচ্ছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *