স্বেচ্ছাশ্রমে পরিচ্ছন্ন হলো চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালানো হয়েছে। চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা কমিউনিটি সাপোর্ট কমিটি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল বুধবার সকাল ৯টায় এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালানো হয়। এ সময় অন্তঃবিভাগ, বহিঃবিভাগ এবং জরুরি বিভাগসহ হাসপাতাল চত্বরে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা করা হয়।

চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা কমিউনিটি সাপোর্ট কমিটি চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার চেয়ারপারসন পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপুর নেতৃত্বে পৌর কর্মচারী এবং জেলার সিভিল সার্জন রওশন আরা বেগমের নেতৃত্বে সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য বিভাগীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দিনব্যাপী পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নেন। এছাড়া অর্ধশত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবক এই কাজে সহায়তা করেন। পরিচ্ছন্নতা অভিযান প্রসঙ্গে চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু বলেন, আমরা যে যতো বড় মাপের মানুষ হই না কেন, মুমূর্ষু অবস্থায় এই হাসপাতালে এসে স্বস্তি পাই। তাই হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর পরিবেশ বজায় রাখতে সমাজের বিত্তবানদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। পাশাপাশি স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে অংশ নেয়া ছাত্রলীগের সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

সিভিল সার্জন রওশন আরা বেগম বলেন, জেলা পর্যায়ে মানসম্মত চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনার  উন্নয়ন ও কর্তৃপক্ষকে সহায়তায় স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সংশ্লিষ্টতা বৃদ্ধি এবং হাসপাতাল পরিচালনায় আর্থিক ও অন্যান্য বাধা দূরীকরণে সারাদেশের ১০টি হাসপাতালে এই কমিটি কাজ করছে। মেয়রকে হাসপাতালের কোনো সমস্যার কথা যখনই বলেছি তাৎক্ষণিকভাবে তিনি প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা থেকে নিয়মিতভাবে ৫ জন এবং হাসপাতালের চিকিৎসরা ২ জন শ্রমিকের আর্থিক সহযোগিতা নিয়মিতভাবে দিয়ে যাচ্ছেন। পরে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজগার টগর এ কর্মসূচির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে। তিনি ৩ জন পরিচ্ছন্নতা কর্মীর নিয়োগ দেয়ার ঘোষণা করেন। যাদের বেতন-ভাতা ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দেয়া হবে তিনি জানান।

চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা কমিউনিটি সাপোর্ট ১৪ সদস্যের কমিটিতে সদর আসনের সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি, জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি, পুলিশ সুপারের প্রতিনিধি, এমওসিএস, বিএমএ’র প্রতিনিধি, আরএমও, বারের প্রতিনিধি, প্রেসক্লাব প্রতিনিধি, জেলা সমাজকল্যাণ অফিসার, এনজিও প্রতিনিধি, সুশীল সমাজ প্রতিনিধি, সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সদস্য সচিব এবং সিভিল সার্জন সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এই কমিটি হাসপাতালের মানসম্মত সেবা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিশেষ করে পরিবেশ রক্ষা, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ কার্যক্রম পরিচালনা ও পরিচালনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সহায়তা প্রদান করবেন। চিকিৎসাসেবার চাহিদা পূরণ ও উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারি বরাদ্দের পাশাপাশি স্থানীয় দাতা ও হিতৈষী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সংশ্লিষ্ট করা এবং তাদের সহায়তায় একটি কমিউনিটি সাপোর্ট তহবিল গঠন এবং এ বিষয়ে প্রদত্ত নির্দেশনা অনুযায়ী তহবিল পরিচালনা করা।

পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচিতে চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র একরামুল হক মুক্তা ও প্যানেল মেয়র মুন্সি রেজাউল করিম খোকন, ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন, ডা. গোলাম মুর্শিদ, ডা. তারিক হাসান, ডা. মাহবুবুর রহমান মিলন, ডা. আসাদুর রহমান মালিক খোকন, ডা. শফিউজ্জামান সুমন, ডা. আকলিমা খাতুন এবং এমওসিএস ডা. আতাউর রহমানসহ স্বাস্থ্য বিভাগীয় বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *