স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় প্রথম স্ত্রীর আত্মহত্যা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় প্রথম স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার সকালে নিহত গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার পিয়ারপুর ইউনিয়নের মাদিয়া গ্রামের আব্দুল হামিদের সাথে প্রতিবেশী মালদ্বীপ প্রবাসী জামিরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা খাতুনের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা বুধবার বিকেলে আব্দুল হামিদকে বেধড়ক মারপিট করে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা দিতে না পারলে সেলিনা খাতুনের সাথে তার জোর করে বিয়ে দেয়া হবে বলে জানানো হয়। এ খবর শুনে আব্দুল হামিদের প্রথম স্ত্রী ডলিয়ারা খাতুন ডলি হরিণগাছি গ্রামে তার বাবার বাড়িতে টাকা নিতে যায়। এরই মধ্যে মাদিয়া গ্রামের একদল উচ্ছৃংখল চাঁদাবাজ যুবক আব্দুল হামিদ ও পরকীয়া প্রেমিকা সেলিনা খাতুনকে বাড়ি থেকে উঠিয়ে নিয়ে পার্শ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলার সাতবাড়িয়া ভাঙ্গাপুলের কাছে এক বাড়িতে নিয়ে তাদের জোর করে বিয়ে দেয়। স্বামীর আব্দুল হামিদের বিয়ের খবর শুনে প্রথম স্ত্রী ডলিয়ারা খাতুন ডলি (৪৫) হরিনগাছী গ্রামে তার বাবা আলহাজ্ব ছিদ্দিকুর রহমানের বাড়ির একটি ঘরে ডাফের সাথে রাত ১১টার দিকে গলায় ফাঁশ দিয়ে আত্মহত্যা করে। বাড়ির লোকজন ডলিয়ারা খাতুনের লাশ ঘরে ডাফের সাথে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ নিহত গৃবধুর লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।
এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি শাহ দারা খান জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এক গৃহবধু তার বাবার বাড়িতে আত্মহত্যা করেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.