স্বামীকে হাজতে রেখে স্ত্রীর নাগর নিয়ে ফুর্তি করতে গিয়ে গ্যাঁড়াকলে

আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি: নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় স্বামীকে হাজতে রেখে স্ত্রীর নাগর নিয়ে ফুর্তি করতে গিয়ে গ্যাঁড়াকলে পড়েছে। গত মঙ্গলবার গভীররাতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় জীবননগর থানা পুলিশ দু জুটিকে আটক করে সকালে থানা থেকে ছেড়ে দিয়েছে।

জানা গেছে, জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া দোসীমানাপাড়ার লতা মণ্ডলের স্ত্রী দু সন্তানের জননী রিক্তা খাতুন (২২) তার স্বামীর বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা আমলি আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে  মামলা দায়ের করে। মামলায় লতা মণ্ডল আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। এ সুযোগে রিক্তা খাতুন প্রতিবেশী আতিয়ার রহমানের অবিবাহিত ছেলে আজিমুল ইসলামের (২৪) সাথে কয়েকদিন আগে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের বড়শলুয়া গ্রামে স্বামী- স্ত্রী পরিচয় দিয়ে আইলচাঁন মণ্ডলের ছেলে বন্ধু খোকনের বাড়িতে কয়েক রাত অবস্থান করছিলো। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে গ্রামের বেরসিক জনতা গত মঙ্গলবার রাতে তাদের আটক করে। খবর পেয়ে জীবননগর থানার এসআই অচিন্ত্য সঙ্গীয় ফোর্সসহ গভীররাতে দু জুটিকে আটক করে থানায় নেয়। গতকাল সকালে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *