সাভারে রানা ট্রাজেডি : ঘোড়াঘাটের জোবেদা বেগম ও রেশমার মা কেমন আছেন?

 

স্টাফ রিপোর্টার: বহুল আলোচিত সাভার ট্রাজেডির ধ্বংসস্তুপ থেকে ১৭ দিন পর উদ্ধারকৃত ঘোড়াঘাটের অসহায় রেশমা সুস্থ, তারপর সর্বশেষ গত ঈদুল ফিতরে সাত দিন আগে ঘোড়াঘাটে তার গ্রামের বাড়ি রাণীগঞ্জ বাজারে তার মার সাথে দেখা করতে যান। এ পর্যন্ত রেশমার মা জবেদা বেগম তার মেয়েকে দেখার জন্য তার ছেলে জাইদুল ইসলামকে বার বার বলতে থাকে। রেশমার মার সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ঈদে তিনি রেশমাকে গ্রামের বাড়িতে ঈদ করার জন্য বলেছিলেন কিন্তু রেশমা তার মার জন্য ৩ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন ও রেশমা ঢাকাতেই ঈদ করায় গত ঈদটি রেশমার মা জবেদা বেগম একাই কাটিয়েছেন। গত ঈদে এ অনুভুতি সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি জানান ইতোপূর্বে যখন রেশমার বয়স ১২/১৪ ছিলো তখন আমি বাজারে দোকান ঝাড়ুদারের কাজ করে সংসার চালাতাম। সেখান থেকে যা উপার্জন হতো তা দিয়ে মেয়ের জামা কাপড়সহ ঈদ করতাম একসাথে সেটাই অনেক আনন্দের ছিলো। এখন সে রাস্তার ধারে রেশমার সাইনবোর্ডের পাশে দাঁড়িয়ে থাকে আর ভাবে কখন আসবে তার মেয়ে। এমনকি আসছে ঈদ-উল আযহায় রেশমা তার সাথে ঈদ করবে কি-না সেটাও প্রশ্নবিদ্যমান থেকে যায় তার কাছে। ঢাকায় এখন কি করছেন রেশমা তার মার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, রেশমা বড় একটি নামীদামী হোটেলে ম্যানেজারী করে এবং অনেক টাকা বেতন পায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *