সাংবাদিক লাঞ্ছিত করা ইউপি সদস্যদের দুঃখ প্রকাশের মধ্যদিয়ে ঘটনার নিস্পত্তি

স্টাফ রিপোর্টার: আলমডাঙ্গার জেহালা ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে নিয়ে সাংবাদিক লাঞ্ছিত করা ইউপি মেম্বাররা দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন, ‘ঘটনার আর পুনরাবৃত্তি হবে না। কর্মসৃজন কাজও বিধি মোতাবেক করা হচ্ছে, করা হবে। যাতে আর ভুল বোঝাবুঝি না হয় সেদিকেও সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে।’
গতকাল রোববার দুপুরে দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রধান কার্যালয়ে জেহালা ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল হক রোকন বিশেষ উদ্যোগে সাংবাদিক অনিক সাইফুলকে নিয়ে আলোচনায় বসেন মাথাভাঙ্গার ব্যবস্থাপক হাসান আক্তার সিদ্দিক। আলোচনায় উঠে আসে কর্মসৃজন কাজ নিয়ে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ প্রসঙ্গ। গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে দৈনিক মাথাভাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি অনিক সাইফুলকে মোবাইলফোনে ডেকে নিয়ে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন কয়েকজন মেম্বার। খবর পেয়ে সাথে সাথে ইউপি চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তিনি ঘটনার তাৎক্ষণিক নিন্দা জানান। বিষয়টি জানাজানি হলে সাংবাদিক মহলে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এরই মাঝে ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল হক রোকন বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে দৈনিক মাথাভাঙ্গা সম্পাদককে উভয়পক্ষের নিকট থেকে বিস্তারিত শোনার আহ্বান জানান। সম্পাদক সার্বিক দায়িত্ব দেন মাথাভাঙ্গা ব্যবস্থাপক ও ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর। রোববার দুপুরে ব্যবস্থাপকের কার্যালয়ে উভয়পক্ষকে নিয়ে বসে বিষদে আলোচনা হয়। একপর্যায়ে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যরা দুঃখ প্রকাশ করার মধ্যদিয়ে ঘটনার নিষ্পত্তি ঘটে। এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না বলেও প্রতিশ্রুতি দেন তারা। ইউপি সদস্য আল আমিন, জনি, হাসিবুল, আব্দুল মজিদ, আনারুল ইসলাম, ওহিদ আলীসহ পরিষদের অন্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *