শ্রীলংকায় ইসলামি চরমপন্থার আশঙ্কা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: কট্টরপন্থি বৌদ্ধদের সহিংস হামলার মুখে থাকাশ্রীলংকার সংখ্যালঘু মুসলিমরা কট্টরপন্থি হয়ে উঠতে পারে। আর সেইক্ষেত্রেতারা সহায়তা পাওয়ার জন্য বিদেশি ইসলামপন্থি গোষ্ঠীগুলোরও দারস্থ হতে পারেবলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন দেশটির আইনমন্ত্রী রউফ হাকিম। গতশুক্রবার বিদেশি সাংবাদিকদের কাছে শ্রীলংকার প্রধান মুসলিম দলীয় এনেতা এ আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।মিয়ানমারে বৌদ্ধ-মুসলিম সহিংসতার জেরে দুবছর ধরে বৌদ্ধ প্রধান শ্রীলংকায়ও মুসলিমদের ওপর সহিংসতা বাড়ছে।শ্রীলংকারমোট ২ কোটি মানুষের মধ্যে ১০ শতাংশ মুসলমান ও ৭০ শতাংশ বৌদ্ধ।হাকিম বলেন, ‘হঠাত করে একটি সম্প্রদায়কে দেয়ালের ওপাশে ঠেলে দেয়ার চেষ্টা বাইরের শক্তির জন্যউর্বর ক্ষেত্র হয়ে উঠতে পারে।’বাইরের শক্তিবলতে তিনি কী বোঝাতে চেয়েছেনতা বিস্তারিতভাবে না বললেও তিনি যোগ করেন, এটি একটি সত্যিকারের টাইম বোমা। ঘটনাসেদিকেই এগিয়ে যাচ্ছে।এ বিষয়টি নিয়ে আমরা সত্যিই উদ্বিগ্ন। আমরা অত দূরেযেতে চাইনা। আমাদের দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, বলেন তিনি।জুনমাসে শ্রীলংকার দক্ষিণাঞ্চলীয় উপকূলীয় পর্যটন শহর আলুথগামা ও বেরুভেলায় বৌদ্ধ ওমুসলিমদের মধ্যে সহিংসতায় অন্ততপক্ষে তিনজন নিহত ও ৭৫ জন আহত হন। এ সময় মুসলিমদেরবাড়িঘর আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া হয়।এসব ঘটনায় কঠোর কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায়আন্তর্জাতিকভাবে সমালোচিত হন শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসে। হাকিমেরকথায়ও একই ধরনের সমালোচনা প্রতিধ্বনিত হয়।তিনি বলেন, সরকারের তথাকথিতবাধ্যতামূলক নিষ্ক্রিয়তাএমন কিছু যা আমরা গ্রহণ করবো না। দরকার মতো তাদের আইনপ্রয়োগ করতে হবে।পশ্চিমে তৈরি হওয়া ইসলামভীতি এখানে অনুকরণ করে স্থানীয়পরিস্থিতির উপযোগী করে সংস্কার করা হয়েছে, বলেন তিনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *