লুটেরাচক্রের হানায় জখম নিরাপত্তা সদস্যকে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি

0
35

দর্শনা রেল ইয়ার্ডে নিরাপত্তাদের সাথে লুটেরাদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

 

দর্শনা অফিস: কোনোভাবেই লুটেরাদের নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছেন না নিরাপত্তাকর্মীরা। দর্শনা রেলইয়ার্ডে রাতদিন অবিরাম লুটপাট ঠেকাতে রিতিমত হিমশিম খাচ্ছেন নিরাপত্তা বিভাগের একাংশের সদস্যরা। লুটেরাদের সাথে নিরাপত্তাদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটছে অহরহ। এবার লুটেরাচক্র নিরাপত্তা বিভাগের সদস্য সাইফুল ইসলামের পায়ের রগ কেটে দিয়েছে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে সাইফুলকে রেফার করে নেয়া হয়েছে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে। নিরাপত্তা বিভাগের পক্ষ থেকে কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলেও হামলাকারীদের ধরার ব্যাপারে নেই কোনো তোড়জোড়। অভিযোগ উঠেছে, দর্শনা রেলইয়ার্ডে রক্ষিত মালবাহী ওয়াগন পৌঁছুনের সাথে সাথে লুটেরাচক্রের মধ্যে মহাৎসব শুরু হয়। সেইসাথে শুরু হয় লুটপাট চুক্তির দরকষাকষি। দর্শনা রেলওয়ে নিরাপত্তা বিভাগের গুটি কয়েকজন সদস্য লুটেরাচক্রের সাথে চুক্তিবদ্ধ থাকলেও অনেকেই রয়েছে এ চুক্তির বাইরে। গত পরশু সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে দর্শনা রেলইয়ার্ডে লুটেরাচক্র হানা দেয়। এ সময় নিরাপত্তা সদস্যদের ধাওয়ার মুখে পালিয়ে যায় লুটেরাচক্রের সদস্যরা। ফের তিনটার দিকে হানা দেয়ার চেষ্টা করলে লুটেরাদের লক্ষ্য করে নিরাপত্তা সদস্যরা ১ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এ গুলিতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। লুটেরাচক্রের সদস্যদের ধরতে ইয়ার্ড ছেড়ে শান্তিনগর বিদ্যালয়ের কাছে যায় বেশ কয়েকজন নিরাপত্তা সদস্য। নিরাপত্তাদের ইয়ার্ডের বাইরে দেখার সুযোগ পেয়ে লুটেরাচক্রের সদস্যরা ধাওয়া করে নিরাপত্তাদের। এক পর্যায়ে ইয়ার্ড এলাকায় দু পক্ষের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় লুটেরাদের ধারালো অস্ত্রের কোপে নিরাপত্তা সদস্য সাইফুল ইসলামের পায়ের রগ কেটে যায়। তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দ্রুত নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। সেখানে সাইফুলের অবস্থার অবনতি দেখা দিলে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। বর্তমানে সাইফুল পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে এ ঘটনায় নিরাপত্তা বিভাগের এএসআই গোলাম কিবরিয়া বাদী হয়ে পোড়াদহ জিআরপি থানায় ৫/৬ জনের নাম উল্লেখ্য করে এবং অজ্ঞাত ২৪/২৫ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করেছেন মামলা। ঘটনার একদিন পেরিয়ে গেলেও নিরাপত্তা সদস্যরা লুটেরাদের কাউকেই আটক করতে পারেনি। তবে এ ঘটনার পরেও থেমে নেই লুটপাট। আসলে দর্শনা রেল ইয়ার্ডে কার ইশারায় লুটপাট হচ্ছে তা খতিয়ে দেখা উচিত বলে মনে করছেন সচেতনমহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here