রাশিয়ায় দু পুসি রায়ট সদস্যের মুক্তি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: রাশিয়ায় ধনকুবের মিখাইল খোদরকোভস্কিকে মুক্তি দেয়ার পর এবার সাধারণ ক্ষমা আইনে প্রতিবাদী নারী সংগঠন পুসি রায়টের দু সদস্যকে মুক্তি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পুতিনবিরোধী নারী পাঙ্ক ব্যান্ড দলের সদস্য নাদেজদা তোলোকোন্নিকভা এবং মারিয়া আলয়খিনা নামের এ দু সদস্যকে গতকাল সোমবার মুক্তি দেয়া হয়। নাদেজদা (২৪) মুক্তি পান সাইবেরিয়ার কারা হাসপাতাল থেকে। আর আলয়খিনাকে (২৫) মুক্তি দেয়া হয় নোভোগোরদের নিঝনি থেকে। তবে মুক্তি পাওয়ার পর দুজনই পুতিনের এ পদক্ষেপকে ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় শীতকালীন সোচি অলিম্পিকের আগে লোকদেখানো বলে মন্তব্য করেছেন। ছাড়া পাওয়ার পরপরই ‘পুতিনবিহীন মস্কো চাই’ স্লোগান দেন তারা। ২০১২ সালের আগস্টে রাজধানী মস্কোর প্রধান ক্যাথেড্রালে প্রতিবাদী একটি গান গাওয়ার কারণে এ দু নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছিলো। ধর্মীয়বিদ্বেষী কর্মকাণ্ডের জন্য তাদেরকে কারাদণ্ড দেয় সরকার। কিন্তু মানবাধিকার সংগঠনগুলো এ পদক্ষেপের সমালোচনা করে। তাছাড়া পুতিবিরোধী নানা সংগঠন এবং পশ্চিমা কয়েকটি দেশও এর সমালোচনা করে। অলিম্পিককে সামনে রেখেই বিতর্ক এড়াতে পুতিন গত সপ্তায় পার্লামেন্টে পাস করা একটি সাধারণ ক্ষমা আইনের আওতায় কারাবন্দিদের মুক্তি দিচ্ছেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকদের অনেকেই। এর আগে এক দশক বন্দি জীবন কাটানোর পর প্রেসিডেন্টের ক্ষমা ঘোষণায় শুক্রবার মুক্তি পান রুশ ধনকুবের মিখাইল খোদোরকভস্কি। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন তিনি। তাকে পুতিনের বিরুদ্ধে সবচেয়ে ক্ষমতাবান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিবেচনা করা হতো। বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত করে তাকে কারাগারে পুরে দেয়া হয়েছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *