মেহেরপুর বামনপাড়ার এক বাড়িতে অসহায় সেজে দুজনের অবস্থান

 

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর সদর উপজেলার বামনপাড়ার একটি বাড়ি থেকে প্রতারণার মাধ্যমে নগদ টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে চম্পট দিয়েছে দু প্রতারক। গত বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ির লোকজনকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে তাদেরকে ঘরে আটকে রেখে নগদ টাকা ও জিনিসপত্র নিয়ে সটকে পড়ে তারা। অবরোধে আটকা পড়েছে এ অজুহাতে কয়েকদিন আগে বামনপাড়ার রায়হান আলীর বাড়িতে আশ্রয় নেয় স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দেয়া দু প্রতারক। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে সব হারানোর মানসিক যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের ৪ সদস্য।

জানা গেছে, শেফালী নামের এক মধ্যবয়স্ক নারী তার স্বামী পরিচয় দেয়া একজনের সাথে নিয়ে বামনপাড়ার রায়হান আলীর বাড়িতে আসে। অবরোধের কারণে দেশের বাড়ি খুলনা যেতে পারছে না বলে আশ্রয় প্রার্থনা করে। পরিবারের সহজ সরল লোকজন অসহায় মানুষ হিসেবে শেফালীসহ পুরুষ লোকটিকে বাড়িতে আশ্রয় দেন। ক’দিন ধরে তারা আত্মীয়তার সম্পর্ক তৈরি করে সুযোগের অপেক্ষায় থাকে অসহায় সেজে থাকা কথিত স্বামী-স্ত্রী। গত বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ির লোকজনকে কোমল পানীয় পান করতে দেয়। কিন্তু বাড়ির লোকজন বুঝতেই পারেনি ওতে ঘুমের ওষুধ রয়েছে। গভীর রাতে বাড়ির লোকজন অচেতন হয়ে পড়লে লক্ষাধিক টাকা ও মূল্যবান মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে। যাওয়ার সময় বাইরে থেকে ঘরের দরজা বন্ধ করে দিয়ে যায়। সকালে প্রতিবেশীরা ঘর থেকে রায়হান হোসেন ও তার স্ত্রী তাছলিমা খাতুন এবং তার ভাইয়ের স্ত্রী আছিয়া খাতুন ও ছেলে তরিকুল ইসলামকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা থানায় কোনো মামলা কিংবা অভিযোগ করেননি বলে জানিয়েছেন মেহেরপুর সদর থানার ডিউটি অফিসার উপসহকারী পরিদর্শক (এএসআই) আবু সায়েম।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *