মেহেরপুর আলমপুরের শুকজান বিবি আর্সেনিক যুক্ত পানি পান করে ক্যান্সারে আক্রান্ত

Exif_JPEG_420

 

সাদ আহম্মেদ: দেশে বর্তমানে ৩ কোটি ২০ লাখ মানুষ মাত্রাতিরিক্ত আর্সেনিক যুক্ত পানি পান করে নানা সমস্যায় পড়ছে। দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে মেহেরপুর একটি আর্সেনিক কবলিত জেলা হিসেবে চিহ্নিত। মেহেরপুর জেলাধীন আমঝুপি ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের অবস্থা সবচেয়ে ভয়ানক। এই গ্রামে প্রতিটি বাড়ির টিউবয়েলের পানিতে ৯৭% বিপদ সীমার ওপরে আর্সেনিক রয়েছে। ইতোমধ্যে ওই গ্রামে ৯ জন মানুষ ওই নলকূপের পানি খেয়ে আর্সেনিকযুক্ত রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। বর্তমানে আলমপুরে ৪৬০ পরিবারের প্রায় ২১০০ নারী-পুরুষ ও শিশু আর্সেনিক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে, ইতোমধ্যে ৪৭৭ জন গায়ে আর্সেনিক রোগে আক্রান্ত। সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন এনজিও সংস্থা গুলো নিরাপদ পানির কিছুটা ব্যবস্থা করলেও সেগুলো বর্তমানে রক্ষনাবেক্ষণের অভাবে সচল নেই। গতকাল শনিবার বিকেল ৪টার দিকে মানব উন্নয়ন কেন্দ্র মউক একটি বেসরকারি সংস্থা আলমপুর গ্রামে আর্সেনিক রোগীদের চিকিৎসা সেবা ও নিরাপদ পানি সরবরাহ বিষয়ে উক্ত গ্রামে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। এ সভায় পরিবেশ বিশেষজ্ঞ ডা. জেটিএ চৌধুরী তারিখ এ গ্রামের আর্সেনিক রোগীদের যন্ত্রণার কথা সরাসরি অনুধাবন করেন। একই সাথে আলমপুর গ্রামে নিরাপদ পানি সরবরাহ ও আর্সেনিক আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সহযোগিতা দিতে মানব উন্নয়ন কেন্দ্র মউকের মাধ্যমে প্রাথমিক পরিকল্পনা গ্রহণ করেন।

মউক নির্বাহী প্রধান আশাদুজ্জামান সেলিম বলেন, এ গ্রামের হতদরিদ্র ও স্বামী পরিত্যাক্তা শুকজান বিবির শারিরীক অবস্থা ভালো না। তার ডান পায়ে আর্সেনিকোসিস রোগে আক্রান্ত হয়ে পচন ধরে দুর্গন্ধ হয়ে পড়েছে। তার চিকিৎসার ব্যয়ভার দেয়া বা দেখার কেউ নেই। তাই মউক ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞ জনাব জেটিএ চৌধুরি তারিখের উদ্যোগে শুকজান বিবিকে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। এ সপ্তাহে তার পায়ে অস্ত্রপাচার করে পায়ের হাটু পর্যন্ত কেটে ফেলা হবে বলে চিকিৎসকসূত্রে জানা যায়।

এ দিকে জনস্বাস্থ্য বিভাগসূত্রে জানা গেছে আলমপুর গ্রামে প্রায় ৪ শতাধিক মানুষ আর্সেনিক রোগে আক্রান্ত হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এখনই সরকারি বা বেসরকারি সংস্থার মাধ্যমে টেকসই/স্থায়ী নিরাপদ পানযোগ্য পানির ব্যবস্থা নিশ্চিত করে এগিয়ে না এলে এ গ্রামে প্রতিটি পরিবারে আর্সেনিক রোগের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে এবং ভয়াবহ রুপ ধারণ করবে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *