মুজিবনগরের বল্লভপুরে জমি নিয়ে বিরোধ : সংঘর্ষ : আহত ১০ : ভাঙচুর লুটপাট

মুজিবনগর প্রতিনিধি: জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে মেহেরপুর মুজিবনগর উপজেলার বল্লভপুর গ্রামে সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় সুশীল মণ্ডলসহ তার পরিবারের লোকজনকে মারধর ছাড়াও বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার ব্যাপারে উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন। আহতদেরকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশসূত্রে জানা গেছে, বল্লভপুর গ্রামের সুশীল মণ্ডলের বাড়ির পাশ দিয়ে গ্রামের যাওয়া আসার রাস্তা। এ রাস্তার জমির সাথে নিজের মালিকানা জমির বেড়া ঘেরার জন্য গতকাল বুধবার সকালে কয়েকজন শ্রমিক নিয়োজিত করেন সুশীল মণ্ডল। এ সময় গ্রামের সুকেন মণ্ডলের নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন এসে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। সুশীল মণ্ডলের লোকজন পিছু হটলে গ্রামের লোকজন তাদের ওপর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। সুশীল মণ্ডলের মেয়ে অ্যাড. শোভা মণ্ডল জানিয়েছেন, গ্রামের নারী-পুরুষ তাদেরকে পেটাতে পেটাতে ঘরে অবরুদ্ধ করে রাখে। বাড়ির মেয়েরাও তাদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি। ঘণ্টাখানেক পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ঘটনার সময় তাদের বাড়িঘর ভাঙচুর ও মূল্যবান মালামাল লুটপাট হয়েছে এবং গাছপালা কেটে দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন শোভা মণ্ডল। সুশীল মণ্ডল (৭৯) ও তার স্ত্রী নিভা মণ্ডল (৬০), মেয়ে বকুল মণ্ডল (৪৫), শোভা মণ্ডল (৪০), সাথী মণ্ডল (২৭), প্রতিবেশী গবের মণ্ডল (৬০) ও গৃহপরিচারিকা কাঞ্চনকে (৩০) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপরপক্ষের হোগো ফকির (৬০), ভেদো ফকির (৫৫) ও পলাশকে (৩২) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শোভা মণ্ডল আরো জানিয়েছেন, রাস্তার জমি নিয়ে মতবিরোধের জের ধরে স্থানীয় চেয়ারম্যান তাদেরকে একটি সীমানা ঠিক করে দেন। সেমতে বেড়া দেয়া ছিলো। গত ১১ নভেম্বর গ্রামের মানুষ বেড়া ভেঙে দেয়। ওই বেড়া পুনঃস্থাপনের জন্য শ্রমিক লাগানো হয়েছিলো। সুশীল মণ্ডলের পক্ষ থেকে রাস্তার জায়গা ছাড়া হলেও স্থানীয় কিছু ব্যক্তি উস্কানি দিয়ে তাদের ওপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে।

এদিকে বল্লভপুর চার্চের সাধারণ সম্পাদক শংকর বিশ্বাস জানিয়েছেন, রাস্তার দু পাশে সুশীল মণ্ডল ও অসিম মণ্ডল এমনভাবে বেড়া দেয় যাতে এলাকার মানুষের চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। গ্রামের মানুষ দুজনেরই বেড়া ভেঙে দেয়। স্থানীয় সালিস কিংবা প্রশাসনের মাধ্যমে আইনানুযায়ী জমির বেড়া দেয়া উচিত ছিলো। তবে এলাকার শান্তি বজায় রাখতে সকলকেই ধৈর্যধারণের আহ্বান জানান তিনি। হামলার বিষয়ে আজ সুশীল মন্ডলের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে বলে তার পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *