ভুট্টাক্ষেতের পর আলুক্ষেত তছনছ : গ্রামবাসীর কাছে বিচারের আকুতি অসহায় আসমা খাতুনের

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা গাড়াবাড়িয়ার প্রতিবন্ধী সন্তানের মা অসহায় বিধবা আসমার ভূট্টাক্ষেতের পর এবার আলুক্ষেতও তছনছ করা হয়েছে। গতপরশু মঙ্গলবার প্রকাশ্যে ভুট্টাক্ষেত বিনষ্ট করা হয়। আলুক্ষেতে গতপরশু রাতে গোপনেই বহু গাছ উপড়ে ফেলে রাখা হয়।

বিনষ্ট ক্ষেত দেখে আসমা গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছে বিচার প্রার্থনা করলেও অপরপক্ষের হুঙ্কারে তেমন কেউই কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। অবশ্য গতকাল সালিসের আয়োজন করা হলেও অভিযুক্ত ঝড়ুসহ তার ছেলে হাজির হয়নি বলে স্থানীয়রা জানিয়ে বলেছেন, কিছুদিন আগে চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপেও সমাধান হয়নি। এখন গ্রামের মাতবররা কি বিধবা আসমার অধিকার রক্ষা করতে পারবেন?

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গা গাড়াবাড়িয়ার বদর উদ্দীন ছিলেন ব্যবসায়ী। কিছু জমি কেনেন তিনি। বাড়ির সাথে দোকান দিয়ে ব্যবসা করতেন। গত ২১ জানুয়ারি বদর উদ্দীন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। অসহায় হয়ে পড়েন স্ত্রী আসমা ও তার প্রতিবন্ধী মেয়ে শাবনুর। স্বামী হারানোর শোক মুছতে না মুছতেই জমি ভাগাভাগির নামে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা শুরু হয়। আসমার স্বামীর ভাই ঝড়ু ও তার ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপন করা হয়। অভিযোগ পুলিশ পর্যন্ত গড়ায়। অভিযোগ অস্বীকার করা হয়। পরে অবশ্য আসমা তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে সাথে নিয়ে স্বামীর রেখে যাওয়া জমিতে আবাদ করার পাশাপাশি দোকানটি চালিয়ে বেঁচে থাকার যুদ্ধে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এরই মাঝে গতপরশু আসমার ভুট্টাক্ষেত প্রকাশ্যে বিনষ্ট করা হয়। রাতে আলুক্ষেত তছনছ করা হলে আসমা গ্রামবাসীর কাছে বিচারের আকুতি জানায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *