বিশ্ব টুকিটাকি : যুক্তরাষ্ট্রকে চরম মূল্য দিতে হবে : হুমকি উত্তর কোরিয়ার

নাইজেরিয়ায় গির্জায় গুলি : নিহত ১১

মাথাভাঙ্গা মনিটর: স্থানীয় দুই ব্যক্তির মধ্যে ঝগড়াকে কেন্দ্র করে নাইজেরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের একটি গির্জায় বন্দুকধারীদের গুলিবর্ষণে ১১ জন নিহত হয়েছে। গত রোববার সকালে আনামব্রা রাজ্যের ওজুবুলু এলাকার এ ঘটনায় আরও ১৮ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যপুলিশ প্রধান গারবা উমর। পুলিশের ধারণা, যে ব্যক্তিকে হত্যার জন্য বন্দুকধারীরা গির্জায় হামলা চালিয়েছিলো, হামলার সময় তিনি সেখানে ছিলেন না তাই বেঁচে গিয়েছেন। তারা স্থানীয় এক ব্যক্তিকে হত্যার চেষ্টা করছিলো বলে মনে করছে পুলিশ, তবে কর্তৃপক্ষ তার পরিচয় প্রকাশ করেনি। সহিংসতার এই ঘটনা মাদক-পাচারের সাথে সম্পর্কিত হতে পারে। উমর বলেন, ‘তাদের টার্গেট গির্জায় আছে ভেবে বন্দুকধারীরা সেখানে এসেছিলো, কিন্তু ঘটনাক্রমে তিনি সেখানে ছিলেন না।’ এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি। নাইজেরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলটি খ্রিস্টান অধ্যুষিত এবং গির্জায় হামলার মতো সহিংসতা এখানে একটি বিরল ঘটনা।

আজাদ কাশ্মীরে খনিতে বিস্ফোরণ : নিহত

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পাকিস্তান-নিয়ন্ত্রিত আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরের রাজধানী মুজাফরাবাদের নিকটবর্তী একটি কয়লাখনিতে বিস্ফোরণে দুই সহোদরসহ পাঁচজন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যায় খনিটিতে বিস্ফোরণের পর তারা আটকা পড়েছিলেন এবং পরে তাদের মৃত্যু হয় বলে সোমবার জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা। নিরাপত্তা নিয়মাবলী অনুসরণ না করায় খনিটির ইজারাদার ও ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ইতোমধ্যে মামলার বিবাদীদের মধ্যে ইজারাদার ও ঠিকাদারের এক পুত্রসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মুজাফরাবাদের ডেপুটি কমিশনার মাসুদুর রেহমান জানান, মুজাফ্ফরাবাদের পূর্বদিকে পার্বত্য সেরি দারা গ্রামের ওই খনিটির ৮০০ ফুট গভীর একটি সুড়ঙ্গে প্রায় সাতজন খনিশ্রমিক কাজ করছিলো, ওই দিন সন্ধ্যায় হঠাত গ্যাস বিস্ফোরণে সুড়ঙ্গটি বন্ধ হয়ে গিয়ে শ্রমিকরা আটকা পড়ে যায়। সুড়ঙ্গটির প্রবেশমুখে থাকা দুই শ্রমিক আহত অবস্থায় বের হয়ে আসতে সক্ষম হলেও বাকীরা ধসে পড়া মাটির নিচে চাপা পড়ে মারা যায়।

অস্ট্রেলিয়ার সৈকতে মাংসখেকো পোকা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: অস্ট্রেলিয়ায় সাগরে নামার পর এক অজানা মাংসভুক পোকার আক্রমণে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়েছে এক কিশোরের পা। স্যাম কানিজে নামের ১৬ বছরের ওই কিশোর গত শনিবার মেলবোর্ন শহরের ব্রাইটন সৈকতে সাগরের পানিতে নামে। সে আধঘণ্টার মতো সময় কোমর পানিতে দাঁড়িয়ে ছিলো। ওই কিশোর জানিয়েছে, পানিতে থাকার সময় সে কিছুই টের পায় নি। কিন্তু পানি থেকে ওঠার পর সে দেখতে পায় যে তার দুই পা-ই ক্ষতবিক্ষত, এবং সেখান থেকে দরদর করে রক্ত পড়ছে। মাংসখেকো এই পোকাটি শনাক্ত করার আহ্বান জানিয়েছে তার পরিবার।

জ্যারড বলেন, আমরা স্যামকে বাথরুমে শাওয়ারের নিচে নিয়ে যায়, কিন্তু তার রক্তপাত কিছুতেই বন্ধ হচ্ছিলো না, রক্ত জমাট বাঁধছিলো না। আমরা তাকে দুটো হাসপাতালে নিয়ে গেলাম, কিন্তু কেউই বলতে পারছিলো না যে স্যামের পায়ে আলপিন ফোটার মতো এই ক্ষতগুলো কি করে হলো। কানিজে তখন নিজেই ঠিক করলেন যে ব্যাপারটা কি বের করতে হবে। তিনি সেই সৈকতে ফিরে গেলেন, এবং দেখলেন সেখানে পানিতে হাজার হাজার ছোট ছোট পোকা দেখা যাচ্ছে। তিনি জাল দিয়ে সেই পোকা ধরলেন। পোকাগুলো এখন বিশেষজ্ঞদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রকে চরম মূল্য দিতে হবে : হুমকি উত্তর কোরিয়ার

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে নতুন করে জাতিসংঘ নিষেধাজ্ঞা আরোপের খসড়া প্রস্তাবনায় ভূমিকা রাখার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে ‘চরম মূল্য’ দিতে হবে বলে হুমকি দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। একইসাথে নতুন করে আলোচনা শুরুর প্রস্তাব উত্তর কোরিয়া প্রত্যাখ্যান করেছে। তাছাড়া, যুক্তরাষ্ট্র কোনও সামরিক পদক্ষেপ নিলে এর জবাবে উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক শক্তি প্রয়োগ করে ‘চরম শিক্ষা’ দিতে প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানিয়েছে। জুলাইয়ে দুইটি আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবে উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন করে কঠোর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাতিসংঘ। শনিবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে সর্বসম্মতিক্রমে এ প্রস্তাব পাস হয়। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রায়াত্ত্ব সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ নিউ এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা আমাদের সার্বভৌমত্বের চরম লঙ্ঘন। নতুন এই বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞার কারণে উত্তর কোরিয়ার রফতানি আয় একতৃতীয়াংশ কমে যাবে। নিষেধাজ্ঞার কড়া জাবাবে সোমবার উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়, তারা তাদের পরমাণু অস্ত্র উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ অব্যাহত রাখবে। কেসিএনএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যেখানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমাদের ক্রমাগত হুমকি দেয়া হচ্ছে সেখানে পিয়ংইয়ং কখনওই আত্মরক্ষার জন্য নিজেদের পরমাণু প্রতিরোধ ব্যবস্থা আলোচনার টেবিলে রাখবে না। যুক্তরাষ্ট্রকে তাদের অপরাধের জন্য হাজার গুণ বেশি মূল্য দিতে হবে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *