বিপুল উত্সাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে সরস্বতী পূজা উদযাপন

 

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: বিপুল উত্সাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা তাদের বিদ্যাদেবী সরস্বতী পূজা উদযাপন করেছে। বিদ্যা ও জ্ঞান লাভের আশায় সকাল থেকেই দেবীর আরাধনায় ভিড় ছিলো মণ্ডপে মণ্ডপে। ঢাক-ঢোলক, কাঁসা ঘণ্টার বাদ্য আর বর্ণিল সাজে মুখর ছিলো বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষার্থী ছাড়াও সব বয়সের নারী-পুরুষ উচ্ছ্বাসের সঙ্গে অংশ নেন এ উত্সবে। প্রতিটি পূজামণ্ডপ সাজানো হয় দৃষ্টিনন্দন সাজে। সকালে বাণী অর্চনার মধ্যদিয়ে শুরু হয় পূজার আনুষ্ঠানিকতা। ষোড়শ উপাচারে যজ্ঞে দেবীর আহ্বান, তারপর মঙ্গল আরতির মাধ্যমে পুষ্পাঞ্জলি এবং আশীর্বাদ নিতে ব্যস্ত ছিলেন ভক্তরা। পুষ্পাঞ্জলি এবং প্রসাদ বিতরণ করা হয়। দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি ছাড়াও সন্ধ্যায় আরতি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় বিভিন্ন মণ্ডপে।

সারাদেশের মতো চুয়াডাঙ্গায় উদযাপিত হচ্ছে সরস্বতী পূজা। জ্ঞানের আলো ছড়াতে এক বছর পর আবারও এসেছেন বিদ্যাদেবী সরস্বতী। সনাতন ধর্মের অনুসারীরা বরণ করে নিয়েছেন দেবী সরস্বতীকে। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসব পঞ্চমী তিথিতে বিদ্যা ও জ্ঞানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতীর চরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন অগণিত ভক্ত। শ্রদ্ধা আর ভালবাসার মাধ্যমে সরস্বতীকে স্মরণ করেন হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা। চুয়াডাঙ্গা পৌর পূজামণ্ডপ ছাড়াও এবার মোট ২৩টি পূজামণ্ডপ স্থাপন করা হয়েছে। আয়োজকরা জানিয়েছেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে তারা পূজা উদযাপন করছেন।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, বিদ্যার দেবী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে মেহেরপুর জেলাতেও। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসবে পঞ্চমী তিথিতে বিদ্যা ও জ্ঞানের অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতীর চরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করছেন শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার সকাল থেকেই মেহেরপুরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শুরু হয় এর আনুষ্ঠানিকতা। অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করতে কল্যাণময়ী দেবীর চরণে প্রণতি জানান তারা। সনাতন ধর্মালম্বীদের মতে দেবী সরস্বতী সত্য, ন্যায় ও জ্ঞানালোকের প্রতীক। বিদ্যা, বাণী ও সুরের অধিষ্ঠাত্রী। সকাল থেকেই শুরু হয় পূজার্চনা, ১০টা থেকে অঞ্জলি প্রদান। সন্ধ্যায় আরতি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মধ্য দিয়ে শেষ হয় এ পূজার আনুষ্ঠানিকতা।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ঝিনাইদহে আড়ম্বর পরিবেশের মধ্য দিয়ে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পূজাকে কেন্দ্র করে বুধবার সকাল থেকেই জেলা শহরের মন্দিরগুলোতে ভিড় জমাতে থাকে সনাতন ধর্মাবলম্বলীরা। জ্ঞান লাভের আশায় সরস্বতী মায়ের রাতুল চরণে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করেন শিক্ষার্থীরা। চলে হাতে খড়ি।

পূজা চলাকালীন সময় উলু ও শঙ্খ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে প্রতিটি পূজামণ্ডপে। শেষে ভক্তদের মধ্য বিতরণ করা হয় প্রসাদ। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, শান্তিপুর্ণভাবে জেলার বিভিন্ন স্থানে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পূজা উপলক্ষে মণ্ডপগুলোতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ স্থানগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশের পাশা-পাশি শাদা পোশাকে পুলিশ টহল দিচ্ছে। ঝিনাইদহ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের দেয়া তথ্য মতে, এ বছর জেলা শহরসহ ৬ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, পাড়া-মহল্লায় ছোট-বড় অন্তত ৭শ মণ্ডপে একযোগে এই সরস্বতী পূজা পালিত হচ্ছে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *