বিদেশি টুকরো

সোমালিয়ায় বোমা হামলায় নিহত ১৮৯

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুর একটি ব্যস্ত এলাকায় এক ভয়াবহ বোমা হামলায় কমপক্ষে ১৮৯ জন লোক নিহত হয়েছে। একটি হোটেলের প্রবেশপথের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি বিস্ফোরক ভর্তি ট্রাক দিয়ে ঘটানো এই বিস্ফোরণে আরো বহু লোক আহত হয়েছে। এরপর শহরের মদিনা এলাকায় আরো একটি বোমা হামলা হয়, যাতে পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী আরো দুজন লোক নিহত হয়েছে। এ বোমা হামলা কারা চালিযয়েছে তা স্পষ্ট নয়। তবে সোমালিয়ায় আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট আল-শাবাব গোষ্ঠী সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত, এবং মোগাদিসু তাদের নিয়মিত টার্গেট। সাফারি নামের হোটেল ভবনটি ভেঙে পড়েছে এবং আশঙ্কা করা হচ্ছে বহুলোক ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে আছে। শহরের একজন বাসিন্দা বলেছেন, বিস্ফোরণে পুরো এলাকাটি ধ্বংস হয়ে গেছে। বলা হচ্ছে, মোগাদিসুতে এর আগে যতো হামলা হয়েছে তার মধ্যে এটি অন্যতম বৃহৎ আকারের বোমা হামলা।

 

বন্যায় পাহাড় ধসে ভিয়েতনামে ৬৮ জনের মৃত্যু

মাথাভাঙ্গা মনিটর: অতি বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় ও পাহাড় ধসে ভিয়েতনামের উত্তর এবং মধ্য এলাকায় এখন পর্যন্ত ৬৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে ৩৪ জন ও আহত হয়েছে ৩১ জন। দেশটির দুর্যোগ মোকাবেলা বিষয়ক কেন্দ্রীয় দফতর এই খবর দিয়েছে। নিহতদের মধ্যে ২০ জন উত্তর এলাকার প্রদেশ হুয়া বিনে প্রদেশের, ১৫ জন মধ্য এলাকা থান হুয়া প্রদেশ ও ৯ জন কেন্দ্রীয় প্রদেশ নেগি আন এলাকার বাসিন্দা। পাহাড় ধসে ও বন্যায় দেশটির ৪০ হাজার ২শ বাড়ি-ঘর ক্ষতি হয়েছে। ২ লাখ ৪ হাজার গবাদি পশু ও হাস-মুরগি মারা গেছে।

 

সৌদি আরবে কাঠের কারখানায় আগুনে নিহত ১০

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে একটি কাঠের সামগ্রী নির্মাণ কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ১০ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছে। গতকাল রোববার এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে সৌদি প্রতিরক্ষা বিভাগ থেকে জানানো হয়। সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের টুইটারে বলা হয়, রিয়াদের বাদর জেলার একটি কাঠের কারখানায় আগুন লাগলে তা দ্রুত ছড়িয়ে যায়। তবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে তথ্য জানানো হয়নি এবং তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি। প্রতিরক্ষা বিভাগ থেকে ইয়ার্ডে আগুন ছড়িয়ে পড়ার ছবি প্রকাশ করা হয়। রাতভর চেষ্টার পর দমকল কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় বলে জানা গেছে।

 

৩৭ বছর বয়সী নারীর ৩৮ সন্তান!

মাথাভাঙ্গা মনিটর: উগান্ডায় ৩৭ বছর বয়সী এক নারী ৩৮ সন্তানের মা হয়েছেন। এ ঘটনা রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছে। সৌভাগ্যবান ওই নারীর নাম মারিয়াম। তার বাড়ি মুকোনো জেলার কাবিমবিরি গ্রামে। মারিয়ামের সর্বশেষ সন্তানের বয়স ১০ মাস। ঘটনা বিশ্বাস করতে কষ্ট হলেও সত্য। মারিয়াম ছয়বার যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। একসাথে তিনটি করে সন্তান জন্ম দিয়েছেন চারবার। এছাড়া একসোথে চারটি করে সন্তান জন্ম দিয়েছেন তিনবার। বাকি দুটি সন্তান সিঙ্গেল। সন্তানদের মধ্যে ১২টি কন্যা, বাকিগুলো ছেলেসন্তান। সবচেয়ে বড় সন্তানের বয়স ২৩ বছর। মারিয়ামের বিয়ে হয় ১২ বছর বয়সে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *