বিদেশি টুকরো খবর

কলকাতায় নেপালি তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আটক ৩

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় এক নেপালি তরুণীকে চলন্ত গাড়িতে গণ-ধর্ষণের এক ঘটনায় পুলিশ গতকাল মঙ্গলবার তিনজন ট্যাক্সিচালককে গ্রেফতার করেছে। সল্টলেকের পুলিশ বলছে ওই গাড়িটিও তারা জব্দ করেছে।

রোববার রাতে কলকাতার সল্টলেক এলাকায় কথিত ওই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ধর্ষিতা ওই তরুণী পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন রাত ১১টার দিকে সল্টলেকে একটি কফির দোকানে বন্ধুদের সাথে তার দেখা করার কথা ছিলো। ট্যাক্সি থেকে নেমে রাস্তায় এক লোকের কাছে তিনি দোকানটির অবস্থান জানতে চান।

একটু পরেই ওই ব্যক্তি এবং আরো তিনজন তাকে জোর করে একটি গাড়িতে তুলে চলন্ত গাড়িতে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে। পরদিন অর্থাৎ সোমবার একটি রাস্তার পাশে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার একজন ট্যাক্সিচালক ওই তরুণীকে পুলিশের কাছে নিয়ে যায়। কলকাতার একটি পানশালার কর্মী ওই তরুণী এখন হাসপাতালে। ২০১২ সালের গোঁড়ার দিকে কলকাতার পার্ক স্ট্রিট এলাকায় একটি পানশালা থেকে বেরুনোর পর একই কায়দায় এক তরুণীকে গাড়িতে উঠিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছিলো। ওই ঘটনা নিয়ে তখন ব্যাপক তোলপাড় হয়েছিলো।

ভারতে গোলাবারুদের গুদামে আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ভারতের সর্ববৃহৎ গোলাবারুদের গুদামে আগুন লেগে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০ জনে দাঁড়িয়েছে। দেশটির মধ্যাঞ্চলীয় মহারাষ্ট্রের পুলগাঁয়ে গত সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত। অস্ত্রভাণ্ডারটি পুরো এশিয়ার মধ্যে দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ। দেশটির সরকারি বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, মহারাষ্ট্র রাজ্যের নাগপুর নগরীর কাছে পুলগাঁর সামরিক অস্ত্রাগারে এ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২০ জনের দুজন কর্মকর্তা ও অপর সবাই সেনা সদস্য। বিস্ফোরণের পর আশপাশের শহর ও গ্রাম থেকে হাজার হাজার লোক সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

চিঠি পৌঁছার আগেই সব শেষ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: চিঠিটা যদি সময়মত পৌঁছাত, তাহলে হয়তো একটা অসহায় মেয়ের জীবন বেঁচে যেতো। আর দেরিতে পৌঁছানোর পরিণতি যা হবার তাই হলো। ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের এক ছাত্রী আত্মহত্যার আগে চিঠি লিখেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও ও পুলিশ প্রধানের উদ্দেশে। চিঠিটি যাতে তাড়াতাড়ি পৌঁছায়, সেজন্য সাধারণ পোস্টে না পাঠিয়ে স্পিড পোস্ট করেন ওই তরুণী। কিন্তু চিঠি যখন মুখ্যমন্ত্রী ও পুলিশ প্রধান হাতে পেলেন তখন সব শেষ। তেলেঙ্গানার ২১ বছরের বিটেক ছাত্রী ঝাঁসি রানি চিঠি লিখে রাজ্যের সর্বোচ্চ কর্মকর্তাদের জানাতে চেয়েছিলেন কিভাবে তার মা ও স্বামী তাকে দেহ ব্যবসায় নামানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। কিভাবে তার ওপর অকথ্য অত্যাচার চলছে। চিঠি লিখে তিনি পোস্টও করেছিলেন। কিন্তু, সঠিক সময়ে তা সঠিক লোকের হাতে পৌঁছানোর আগেই নিজের পরিবারের বিরুদ্ধে চরম সিদ্ধান্ত নিতে হয় তাকে। হায়দরাবাদ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে নাক্রেকালে বাস করতেন ঝাঁসি। চিঠি পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে জানতে পারে ঝাঁসি আত্মহত্যা করেছেন। এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন ঝাঁসির মা ও স্বামী।

রোম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে পুড়িয়ে মারলো সাবেক প্রেমিক

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ইতালির রোম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে তার সাবেক প্রেমিক রাস্তায় পুড়িয়ে হত্যা করেছে। এই ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেছেন, এটি তার ২৫ বছরের ক্যারিয়ারে দেখা সবচেয়ে নৃশংস অপরাধ। তদন্তকারী কর্মকর্তা জানিয়েছেন ২২ বছর বয়সী সারা ডি পিয়েত্রান্তোনিওর গাড়িতে রেখে তার সাবেক প্রেমিক ভিনসেনজো পাদুয়ানো আগুন লাগিয়ে দেয়। গাড়ি থেকে বের হয়ে গেলে সারাকে ধাওয়া করে। তদন্তকারী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এরপর সারার মুখে অ্যালকোহল ঢেলে সিগারেট লাইটার দিয়ে আগুন দেয় ভিনসেনজো। হামলাকারী ভিনসেনজোকে আটক করা হয়েছে। একটি সার্ভেলেন্স ক্যামেরায় তোলা ছবিতে দেখা গেছে আগুন লাগিয়ে দেয়ার পরে চিৎকার করে সাহায্য চাচ্ছিলেন সারা। পাশ দিয়ে তখন দুটি গাড়ি গেলেও কেউ তাকে সাহায্য করেনি। মামলার তদন্তকারী প্রসিকিউটর মন্টিলিউন বলেন, যদি পথচারীরা তাকে সহযোগিতা করতো তাহলে হয়তো তার জীবন বাঁচতো। ঘটনার তদন্তের দায়িত্বে থাকা পুলিশ কর্মকর্তা লুইগি সিলিপো বলেন, আমি এটা বলবো যে ২৫ বছরের ক্যারিয়ারে এমন নৃশংসতা দেখিনি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *