বিদেশি টুকরো খবর

ইরানে ছেলে-মেয়ে একসাথে পার্টি করায় ৯৯ বেত্রাঘাত!

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ইরানে স্নাতক ডিগ্রি উদযাপনে ৩০ জনের বেশি ছেলে-মেয়েদের অংশগ্রহণ করায় প্রত্যেককে ৯৯ ঘা বেত মারা হয়েছে। কাজভিনের কাছে একটি ভিলায় প্রচুর সংখ্যক ছেলে-মেয়ের পার্টিতে সামিল হওয়ার খবর পাওয়ার পর সবাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে স্থানীয় শহরের প্রসিকিউটর জেনারেল ইসমাইল সাদেঘি নিয়ারাকি। তিনি জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের বিচার করে প্রত্যেককে ৯৯ ঘা বেত মারার সাজা দেয়া হয়। নীতি-পুলিশ এক মুহূর্তে দেরি না করে তখনই সেই সাজার নির্দেশ কার্যকর করে যাতে ভবিষ্যতে সামাজিক রীতি লঙ্ঘনের চেষ্টা করার কী ভয়ঙ্কর পরিণাম হতে পারে, সে ব্যাপারে স্পষ্ট বার্তা দেয়া যায়। তিনি দাবি করেন, গ্রেফতার হওয়া ওই ছেলে-মেয়েরা অর্ধনগ্ন অবস্থায় ছিলো, মদ খেয়ে অশালীন আচরণও করে। এতে জনমানসে প্রতিক্রিয়া হয়। ২৪ ঘণ্টার কম সময়ের মধ্যে ওদের জেরা, তদন্ত ও বিচার করে সাজা ঘোষণা ও কার্যকর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, ইরানে ছেলে ও মেয়েদের একসাথে নাচ নিষিদ্ধ, বিশেষত যদি সেই মেয়েরা ইসলামি রীতি মেনে পর্দানসীন না থাকে। কোনো রেস্তোরাঁ বা কেটারিং হল ছেলে-মেয়ের যৌথ নৃত্যের অনুষ্ঠান করতে দিলে বা মদ পরিবেশন করলে তা বন্ধ করে দেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন নিয়ারাকি।

বাবা-মায়ের দ্বায়িত্বজ্ঞানহীনতায় বনে হারিয়ে গেল সন্তান

মাথাভাঙ্গা মনিটর: মাত্র সাত বছর বয়সী ছেলেকে শাস্তি দিতে চেয়েছিলেন এক জাপানি দম্পতি। এর জন্য হোক্কাইডোর নির্জন বনের মধ্যে ছেড়ে আসেন ছেলেকে। আর এর পর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। খারাপ ব্যবহার করায় ছেলেকে শাস্তি দিতে চেয়েছিলেন ওই দম্পতি। এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করতে দিতে গিয়ে দুই দিন পার হয়ে যাওয়ার পরও ছেলের হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। বনের যে এলাকায় শিশুটি হারিয়ে গেছে সেখানে বুনো ভালুকের আবাস রয়েছে। শিশুটিকে খুঁজে বের করতে জরুরি বিভাগের কয়েকশ কর্মী বনের ওই এলাকাটিতে তল্লাশি চালাচ্ছে। অনেক সময় পরও শিশুটি বন থেকে ফিরে না আসায় ওই দম্পতি প্রথমে পুলিশকে গিয়ে জানায়। তবে এ সময় পুলিশকে মিথ্যা কথা বলে তারা। তারা বলে, সবজি সংগ্রহ করতে গিয়ে তাদের ছেলে বনে হারিয়ে গেছে। তবে এর একদিন পর তারা সত্য ঘটনা প্রকাশ করে। ওই বাবা-মা বলেন ছেলেকে ভদ্রতা শেখাতে শাস্তি দিতে চেয়েছিলেন তারা।

লতা-শচীনের ব্যাঙ্গ ভিডিও নিয়ে ভারতে হৈ চৈ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: মুম্বাইয়ের জনপ্রিয় কমেডিয়ান তন্ময় ভাটের একটি ভিডিও নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কিংবদন্তী তারকা লতা মঙ্গেশকর ও শচীন টেন্ডুলকারকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক ভিডিও বানিয়ে তিনি এই সমালোচনায় পড়েন। মুম্বাই পুলিশ জানিয়েছে, এ নিয়ে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার (এমএনএস) দায়ের করা একটি মামলার তদন্ত করছেন তারা। এদিকে ভিডিওটি ব্লক করে দেয়ার জন্য পুলিশ গুগল ও ইউটিউবের সাথে যোগাযোগ করছে। ক্ষমতাসীন বিজেপি ও শিব সেনা কমেডিয়ান তন্ময় ভাট এবং কমেডি স্কেচ গ্রুপ এআইবির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফাডনাভিসের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। ভিডিওটির শিরোনাম ছিল ‘শচীন বনাম লতার গৃহযুদ্ধ’। এতে লতা ও শচীনকে নিয়ে অসম্মানজনক রসিকতা করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। ভিডিওটিতে শচীনের চেহারা বিকৃত করে ক্রিকেটার বিরাট কোহলি সম্পর্কে বাজে মন্তব্য করেন তন্ময়। পরে লতা মঙ্গেশকরের চেহারা নিয়ে তাকে অপমান করেন তিনি। এ সময় তিনি প্রশ্ন তোলেন কে ভালো খেলোয়াড় শচীন না কোহলি। গত ২৬ মে নিজের ফেসবুক পেইজে এটি আপলোড করেন তন্ময়। এরপর ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হয়।

এখন প্রশ্ন উঠেছে এটি মজা না আক্রমণ নাকি কোনোটাই নয়। এ নিয়ে অভিনেতা ও কমেডিয়ান অনুপম খের বলেন, আমি ৯ বার শ্রেষ্ঠ কমিক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি। কিন্তু এ ধরনের রসিকতার মানে হয় না। এটি অস্বস্তিকর এবং অসম্মানজনক। এছাড়া আরো অনেকেই একে ন্যক্কারজনক বলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

দাড়ি কাটলে আট হাজার টাকা জরিমানা!

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সাম্প্রতিক সময়ে সামরিক অভিযানে চাপের মুখে পড়া জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট অর্থের জন্য অদ্ভুত সব কর আরোপ করছে। এর মধ্যে রয়েছে দাড়ি কাটলে ১০০ ডলার জরিমানা, যা বাংলাদেশি মূদ্রায় প্রায় আট হাজার টাকা। জানা গেছে শুধু পুরুষের দাড়ির উপরেই না, যদি কোন নারীর শরীরে আঁটসাঁট অবস্থায় বোরকা দেখা যায় তাহলে তাকেও ২৫ ডলার জরিমানা দিতে হবে। অর্থনৈতিক সঙ্কটের কারণেই আইএস তাদের দখলকৃত অঞ্চলগুলোতে বিভিন্ন নতুন নতুন ইস্যুতে কর ও জরিমানা বৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে। আইএইচএস নামের একটি গবেষণাধর্মী কোম্পানি তাদের ইরাক এবং সিরিয়ার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের ভিত্তিতে এই খবর জানিয়েছে।

আইএইচএসের একজন বিশ্লেষক জানিয়েছেন, গত ৬ মাস ধরে আইএস তাদের দখলে থাকা এলাকাগুলোতে নতুন ইস্যুতে কর বৃদ্ধি শুরু করেছে। যদি কোন পুরুষ দাড়ি কেটে ক্লিন শেভ করে তাহলে তার জন্য ১০০ ডলার এবং যদি কেউ দাড়ি ছাঁটে তাহলে ৫০ ডলার জরিমানা দিতে হবে। কোন পুরুষ যদি লম্বা জোব্বা না পরে তাহলে ৫ ডলার জরিমানা।

 

কোন নারী আঁটসাঁট বোরকা পরে শরীরের আকৃতি প্রদর্শন করলে তার ২৫ ডলার জরিমানা দিতে হবে। কোন নারীর চোখ যদি প্রকাশ্যে দেখা যায় তাহলে তাকে ১০ ডলার অথবা ২৪ ক্যারেট স্বর্ণের ১ গ্রাম স্বর্ণ জরিমানা দিতে হবে। হাত ও পায়ে মোজা না পরলে ৩০ ডলার। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, কোন পুরুষের কাছে সিগারেট পেলে ৪৬ ডলার জরিমানা, নারীর ক্ষেত্রে এটা ২৩ ডলার জরিমানা।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *