বিএনএফ’র দামুড়হুদা থানা শাখার সাইনবোর্ড লাগিয়ে কাযক্রম শুরু

 দামুড়হুদা অফিস: বাংলাদেশ ন্যাশনালিষ্ট ফ্রন্ট বিএনএফ’র দামুড়হুদা থানা শাখার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সাইডবোর্ড টাঙানো হয়েছে দামুড়হুদা বাসস্টান্ডের অদূরে হাজি ফারুক হোসেন মার্কেটের দোতালায়। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) লোগোবিহীন এ সাইনবোর্ডটি টাঙানো হয়। অথচ ক’দিন আগেই ব্যারিস্ট্রার নাজমুল হুদা বিএনএফ বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে বলে পত্রপত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। কেন্দ্র থেকে বিলুপ্ত, উপজেলায় নতুন করে তা চালু করা নিয়ে নানা প্রশ্ন দানা বেধেছে। ধানের শীষ নাকি গমের শীষ প্রতীক? এ নিয়েও প্রশ্নের শেষ নেই।

হাজি ফারুক মার্কেটের পরিচালক আব্দুল বারিক জানান, চুয়াডাঙ্গার টোটো এক হাজার টাকার মাসিক চুক্তিতে মার্কেটের দোতলার দক্ষিণপার্শ্বের ওই ঘরটি ভাড়া নেয়। সাইনবোর্ড টাঙানোর পর থেকে ঘরটি সেভাবে বন্ধই থাকে। তেমন কাউকে দেখা যায় না। তবে গতকাল শনিবার দুপুরে এডিসি পরির্শন করেন। ।

বিএনএফ’র চুয়াডাঙ্গা জেলা আহ্বায়ক আতিকুর রহমান জোয়ার্দ্দার টোটো দৈনিক মাথাভাঙ্গার এ প্রতিবেদককে গতকাল সন্ধ্যার পর এক সাক্ষাতকারে বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে এ সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ। গমের শীষ আপনাদের সংগঠনের লোগো নাকি প্রতীক এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন অনেক কথা। ধানের শীষ বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)’র প্রতীক। মশিউর রহমান জাদু মিয়া বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)’র ১৯৭৮ সালে মহাসচিব ছিলেন। তখন আমাদের ধানের শীষ প্রতীক ছিলো। জিয়াউর রহমান তখন আমাদের লোগো, গঠনতন্ত্র ১৯ দফা কর্মসূচি ও ধানের শীষ প্রতীক ব্যবহার করে আমাদের দলের পক্ষে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। তারপর তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল নামে একটি নিজস্ব দল তৈরি করেন। ১৯৮১ সালে তিনি মারা যাওয়ার পরে বিএনপির কিছু মানুষ পরবর্তী নির্বাচনে আমাদের নিবন্ধন বাতিল করে দেয়। পরবর্তীতে এ দলে চিফ হন নাজমুল হুদা আর মহাসচিব হন আবুল কালাম আজাদ। নাজমুল হুদাকে বেগম খালেদা জিয়া কৌশলে নিয়ে নেয়। ফলে আমরা নাজমুল হুদাকে এ সংগঠন থেকে বহিষ্কার করি। বর্তমানে রেজিস্ট্রেশনবিহীন আপনারা কীভাবে সংগঠন করছেন, সাইনবোর্ড টাঙাচ্ছেন এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চিন্তা করবেন না। সবকিছু অতিশীঘ্রই হয়ে যাবে। এডিসি জেনারেল, জেলা নির্বাচন কমিশনার জেলা তথ্য অফিসার সমন্বয়ে একটি কমিটি আছে। আমাদের কোনো সংগঠন আছে কি-না এবং তার অফিস ও কার্যক্রম আছে কি-না তা অডিট করতে এসেছিলেন। আমরা আমাদের সকল কাগজপত্র উনাদের হাতে দিয়ে দিয়েছি। আজ ছিলো কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনারের নিকট কাগজপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন। গমের শীষ কি আপনাদের প্রতীক হবে? এ পশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না না গমের শীষ প্রচার করে বেড়াচ্ছে বিএনপি। আমাদের প্রতীক ধানের শীষ। আমাদের নেতা মাও. ভাসানী। প্রতীক ছিলো ধানের শীষ। এ ধানের শীষ জিয়াউর রহমানকে দেয়া হয়েছিলো বিএনএফ’র পক্ষ থেকে নির্বাচন করার জন্য।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *