বাংলাদেশে প্রতি বছর ১ লাখ ৭০ হাজার কিশোরী মা হচ্ছে

 

স্টাফ রিপোর্টার: মাতৃত্বের প্রবণতা বিশ্বে তৃতীয় হলেও এশিয়ায় প্রথম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। একইভাবে  কৈশোরে বিয়ে প্রবণতায়ও বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম। তবে গত ৩০ বছরে শিশু জন্ম হার গড়সংখ্যা ৬ জন থেকে ২ জনে নেমে এসেছে। তাই কৈশোরে বিয়ে ও মাতৃত্বের হার কমিয়ে আনতে আরও সময় লাগবে। গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ইউএনএফপিএ আয়োজিত ‘কৈশোরে মাতৃত্ব: গর্ভধারণ, প্রতিবন্ধকতা ও তা প্রতিরোধ’ শীর্ষক বার্ষিক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বে প্রতি বছর ১৮ বছর বয়সে গড়ে ৭ দশমিক ৩ মিলিয়ন মেয়ে গর্ভধারণ করে। বাংলাদেশে ১ দশমিক ৭ ভাগ শিশু ১৫ থেকে ১৯ বছরের মধ্যে বিয়ে এবং ১৯ বছরের আগেই ৫৮ ভাগ সন্তান জন্ম দেন। এর মধ্যে ৮ ভাগ শিশু ২টি সন্তান জন্ম দেয়। অনুষ্ঠানে আলোচকরা বলেন, বাল্যবিয়ের প্রধান কারণ সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পিতা-মাতার অসচেতনতা। এছাড়া জলবায়ু ও পরিবেশও অন্যতম কারণ বলে উল্লেখ করেন তারা। প্রতিবেদনে দেখা যায়, বাংলাদেশে সিলেট বিভাগে সবচেয়ে বেশি (১৭.৫ ভাগ) শিশুর বাল্যবিয়ে হয়, রংপুরে সবচেয়ে কম (১৫ ভাগ) শিশু বাল্যবিয়ের শিকার হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব নিয়াজ উদ্দিন, ড. নার্গিস ফাতেমা প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *