ফ্রান্সের প্যারিসে বাংলাদেশ দুতাবাস ঘেরাও

আবু তাহির, ফ্রান্সঃ ফ্রান্সের প্যারিসে বাংলাদেশ দুতাবাস ঘেরাও কর্মসুচীতে ফ্রান্স বিএনপি নেতারা বলেন স্বৈরাচারী শেখ হাসিনার পতন হলো। এখন থেকে দেশ চলবে জনগণের ইচ্ছায়। হাসিনার কোনো আইন মানা হবে না। পঞ্চম সংশোধনী ছিঁড়ে ফেলে দিয়ে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই আগামী  নির্বাচন করবো। বক্তারা বলেন জনমানুষের ভোট ছিনতাইয়ের অপচেষ্টা শুরু করেছে বর্তমান সরকার। প্রশাসনকে দিয়ে নির্বাচন করতে চাইছে।নিশ্চিত ভরাডুবি জেনেই সরকার এ ধরনের বাকশালি চিন্তা করছে।দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন নেই।স্বাধীন দেশ কার ইশারা্য় পরাধীনতার শৃংখলে আবদ্ধ তা জনসাধারন খুব ভাল জেনে গেছে।

গত ২৪ অক্টোবর ঘেরাও কর্মসূচি পালনকালে বক্তারা আরো বলেন, ৫ বছর ধরে বিরোদীদলের কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে উল্লেখ করে তারা বলেন, গণতান্ত্রিক অধিকারের কথা বললেই পুলিশ দিয়ে হামলা চালানো হয়,এটা কি ডিজিটাল গনতন্ত্র,নাকি গনতন্ত্রের নাম দিয়ে বাকশালের রুপরেখা জাতি জানতে চায়।বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার এর প্রতিবাদে ও নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের দাবীতে ফ্রান্স বিএনপির সকল বিবেদ ভুলে সকল গ্রুপের সম্মিলিত উদ্যোগে বাংলাদেশ দূতাবাস ঘেরাও,অবস্থান ধর্মঘট কর্মসুচী পালন করে এবং সরকারের কতৃক পরিচালিত সকল ঘৃন্য কর্মসুচীর বিরুদ্ধে ফ্রান্সস্থ বাংলাদেশ রস্ট্রদূতের কাছে স্বারক লিপি প্রদান করে ।দীর্ঘ দিন পর ফ্রান্স বিএনপির সকল নেতা কর্মীরা মত বিভেদ ভুলে এক কাতারে মিলিত হয়ে বিক্ষুভ সমাবেশ পালন করেন তা অনেকটা মিলনমেলায় পরিনত হয়।

bnpgugijহাজী হাবীব,জুনেদ আহমদ ও মাহবুব আলম রাংগার  পরিচালনায়  অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন ফ্রান্স বিএনপি নেতা সাইফুর রহমান,আহসানুল হক বুলু,এম এ তাহের,সানাওয়ার খান,সিরাজুর রাহমান,আছাদ বেপারী, আলম,শাহ জামাল,মিজান শিকদার,মনির খান,শাহেদ আলী,শিরমান আলী, রাঙ্গা,জালাল খান,হেনু মিয়া,মফিজ আলী, রিপন হাওলাদার,শ্যামল দাস,, কিরন আহমেদ,শাওন আহমেদ,ফরিদ আহমেদ,গোলাম আবেদীন কাওছার,আইয়ুব খান,মিজানুর রাহমান,বজলুর রশিদ চৌধুরী, তারেক আহমেদ,খাইরুল কবির,জামান খান,ওমর গাজী,মনোয়ার আহমেদ,অয়াসিক রাহমান,আব্দুল্লাহ টিপু,দেলয়ার হোসেন,কয়ছর আহমেদ ,রেজাউল করিম,মুজিবুর রাহমান ,শামীম ফজলুর করিম ,কবির আহমেদ , সাইফুল আহমেদ ,মাসুদ আহমেদ,রুবেল আহমেদ,আব্দুল কাইয়ুম,জাহিদুল ইসলাম সিপার ,রুহুল আমিন সহ ফ্রান্স বিএনপির নেতৃবৃন্দ । সভা থেকে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার গাড়ী বহরে হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।সভা থেকে অতি সত্বর জননেতা এম ইলিয়াস আলীকে ফিরিয়ে দেয়ার আহবান জানানো হয়।সভায় উপস্তিত তৃনমুল নেতাকর্মীরা ফ্রান্স বিএনপির ঐক্যেকে শুভেচ্ছার মাধ্যমে সাধুবাদ জানান।উল্লেখ্য ফ্রান্স বিএনপির এ ঐক্যের ফলে শীঘ্রই ফ্রান্সে পুর্নাংগ কমিঠি আসতে পারে যা ফ্রান্স বিএনপির নেতাকর্মীর কাছে অনেক প্রত্যাশিত ও আবেগজড়িত।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *