ফেলানী হত্যার পুনর্বিচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসএফ

 

স্টাফ রিপোর্টার: ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ জানিয়েছে, সীমান্তে বাংলাদেশের কিশোরী ফেলানী খাতুন হত্যা মামলার রিভিশন ট্রায়াল বা পুনর্বিচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বিএসএফ’র একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার ওপর ফেলানী খাতুন হত্যাকাণ্ডের যে রায় বিএএসএফ’র বিভাগীয় আদালত দিয়েছেন, সেই রায়ের সাথে তারা একমত হতে পারছেন না। তাই অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষকে অবিলম্বে পুনর্বিচার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। বিএসএফ’রই আভ্যন্তরীণ আদালতে এ বিচার হবে। বিএসএফ’র মহাপরিচালক সুভাষ যোশি বাংলাদেশ সফরে যাওয়ার একদিন আগে ফেলানী হত্যাকাণ্ডের বিচারের ব্যাপারে এ সিদ্ধান্ত জানানো হলো। ঢাকায় দু দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে মহাপরিচালক পর্যায়ের এক বৈঠকে যোগ দিতে সুভাষ যোশি সেখানে যাচ্ছেন। বিএসএফ’র মহাপরিচালক হিসেবে এটিই হবে তার প্রথম ঢাকা সফর। ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভোরে পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার অন্তর্গত চৌধুরীহাট সীমান্ত চৌকির কাছে কাঁটাতারের বেড়া পেরনোর সময়ে ফেলানি খাতুন কনস্টেবল অমিয় ঘোষের গুলিতে মারা যান। দীর্ঘক্ষণ তার দেহ বেড়ার ওপরেই ঝুলে ছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *