প্রতি জেলায় শিল্পাঞ্চল গড়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

স্টাফ রিপোর্টার: শিল্পের বিকাশে প্রত্যেক জেলায় শিল্পাঞ্চলের জন্য স্থান নির্ধারণ ও এলক্ষ্যে জরিপ চালাতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী যখন এই নিদের্শ দিলেন, তখনও চুয়াডাঙ্গায় গড়ে তোলা যায়নি বিসিক শিল্পনগরী। দীর্ঘদিনে যে জেলায় গড়ে তোলা যায়নি বিসিক শিল্পনগরী, সেই জেলায় শিল্পাঞ্চল? গতকাল রোববার মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে মন্ত্রণালয়টির কর্মকর্তাদের উদ্দেশে দেয়া ভাষণ টিভি খবরে দেখে চুয়াডাঙ্গার অনেকেই এ প্রশ্ন তোলেন।

প্রধানমন্ত্রীবলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার জন্য এইপরিকল্পনা। এটি স্থানীয় সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করে ব্যবসা করতেবিনিয়োগকারীদের উত্সাহিত করবে। তিনি বলেন, শিল্প প্রবৃদ্ধির জন্য বেসরকারিখাতের ওপর গুরুত্ব দেয়া হলেও এ ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তাদের মনে রাখতেহবে যে বিশেষ করে শিল্পনীতির যথাযথ বাস্তবায়ন ও অন্যান্য বিষয় মনিটরিঙেসরকারের বিরাট ভূমিকা রয়েছে।পরিবেশবান্ধব শিল্প গড়তে কর্মকর্তাদের সতর্কতার সাথে কাজ করার আহ্বানজানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব সময় পরিবেশবাদীদের হইচইশুনতে হবে, এমনকোনো কথা নয়। তিনি বলেন, যেখানে সেখানে শিল্প-কারখানা স্থাপনের অনুমতিদেয়া যাবে না। তবে সুচিন্তিত পরিকল্পনার মাধ্যমে মূল্যবান জমি ও পরিবেশধ্বংস না করে শিল্পের জন্য নির্ধারিত স্থান গড়ে তুলতে হবে।বাংলাদেশ কৃষি, শিল্প ও জনশক্তির ভিত্তিতে একটি সুখী ও সমৃদ্ধ দেশেপরিণত হবে-এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এসব সম্পদপরিকল্পিতভাবে কাজে লাগাতে পারলে কেউ আমাদের আটকাতে পারবে না।’

দেশের সাতটি অঞ্চলে বিশেষ শিল্পাঞ্চল স্থাপনে বর্তমান সরকারেরপরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এছাড়া স্থানীয় ও বিদেশিবিনিয়োগের উপযোগী আরও স্থান খুঁজে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার আর কোনোপাটকল বিক্রি করবে না বরং এসব স্থাপনাকে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্যশিল্প প্লটেরূপান্তর করা হবে। তিনি সারের উত্পাদন শুরু করতে সাফকোতেগ্যাস সরবরাহের নির্দেশ দেন।অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মাদ মঈনউদ্দিন আবদুল্লাহ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *