পান চুরির অপবাদ দিয়ে অমানবিক নির্যাতন

 

ভেঙেছে হাত-পা : হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে তোলা প্রশ্নের জবাব দেবে কে?

স্টাফ রিপোর্টার: পান চুরির অপবাদ দিয়ে চুয়াডাঙ্গা হাতিকাটা খেয়াঘাটপাড়ার মজিবর রহমানের (৩৮) হাত ও পা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। গত মঙ্গললবার রাত ১১টার দিকে তাকে ডেকে নিয়ে রেজাউল, বোরহান, কালু ও শান্তিসহ তাদের লোকজন নির্মমভাবে নির্যাতন করে।

মজিবর রহমানকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। চিকিৎসাধীন মজিবর রহমান বলেছেন, আমি তো কোনো দোষ করিনি। আমাকে মেরে আমার হাত ও পা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে ওরা। আমি গরিব মানুষ। আমার রয়েছে সন্তান। আমি কাজ না করলে আমার শিশু সন্তানের মুখে খাবার জুটবে কীভাবে? এসব প্রশ্নের অবশ্য জবাব মেলেনি। কে দেবে জবাব? তারই ইয়ত্তা নেই। তবে গ্রামের সাধারণ মানুষ গতকাল বুধবার হাসপাতালে মজিবর রহমানকে দেখতে এসে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

মজিবর রহমান চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের আলুকদিয়া ইউনিয়নের হাতিকাটা খেয়াখাটপাড়ার মৃত তোয়াজ মণ্ডলের ছেলে। তার শয্যাপাশে থাকা লোকজন বলেছেন, গ্রামেরই কয়েকজনের পানবরজ থেকে সম্প্রতি পান চুরি হয়। রেজাউলসহ কয়েকজন প্রথমে হাতিকাটার কাবিলের ঘরজামাই শাহাবুদ্দিনকে ধরে মারধর করে। এরপর নির্যাতনকারীরা মজিবরকে ডেকে নিয়ে আটকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.