পাওনা টাকা নিতে চুয়াডাঙ্গায় এসে প্রতারণার শিকার সুনামগঞ্জের হাজি আবু নাফি

অজ্ঞান : অন্যের সহযোগিতায় অবশেষে বাড়ির পথে

 

স্টাফ রিপোর্টার: পাওনা ২৬ হাজার টাকা আদায়ের জন্য সুদূর সুনামগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গায় এসে উল্টো প্রতারিত হয়ে অন্যের সহযোগিতায় ফিরলেন হাজি আবু হানিফ (৪০)। গতকাল শনিবার বাদ জোহর তাকে চুয়াডাঙ্গা কোর্ট জামে মসজিদ থেকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। রাতে সুন্দরবন এক্সপ্রেসযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন তিনি।

জানা গেছে, সুনামগঞ্জ ছাতকের কালীবাড়ি গ্রামের মৃত নূর হাজি তালুকদারের ছেলে হাজি আবু হানিফ দীর্ঘদিন ধরে সৌদী প্রবাসী। মক্কায় তিনি হোটেল ব্যবসায়ী। গতকাল বাদ জোহর আবু হানিফ চুয়াডাঙ্গা কোর্ট জামে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গিয়ে জ্ঞান হারান। নামাজিদের মধ্যে কেদারগঞ্জের বকুলসহ অনেকেই তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান। চিকিৎসার এক পর্যায়ে জ্ঞান ফেরে। তিনি তার বিস্তারিত পরিচয় দিয়ে বলেন, চুয়াডাঙ্গার শাহিন নামের একজনের সাথে মক্কায় পরিচয় হয়। ২৬ হাজার টাকা ধার নেয়। সম্প্রতি দেশে ফিরে শাহীনের সাথে মোবাইলফোনে যোগাযোগ হয়। পাওনা টাকা চাইলে শাহিন চুয়াডাঙ্গায় আসতে বলে। কয়েকদিন আগে চুয়াডাঙ্গায় আসি। স্টেশনে শাহিনের সাথে দেখা হয়। সে এখানে ওখানে ঘুরিয়ে আমার পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো শাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করে। মোবাইলফোনসহ কাছে যা ছিলো সবই কেড়ে নিয়ে কিছু একটা খাইয়ে ছেড়ে দেয়। মসজিদে গিয়ে জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যাই।

হাজি আবু হানিফের কথা শুনে হাসপাতাল সমাজসেবা থেকে কিছু অর্থ দেয়া হয়। বকুলও কিছু টাকা দেন। এ টাকা নিয়ে হাজি আবু হানিফ গতরাতে সুন্দরবন এক্সপ্রেসযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন। ঢাকা হয়ে তিনি বাড়ি সুনামগঞ্জে ফিরবেন। আবু হানিফ অবশ্য চুয়াডাঙ্গার শাহিনের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেননি। মোবাইলফোন নম্বরও জানা যায়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *