নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনে প্রাথমিকের প্যানেল শিক্ষকরা

 

স্টাফ রিপোর্টার: হাইকোর্টের রায় অনুযায়ী বেসরকারি রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্যানেলভুক্ত সবাইকে নিয়োগ দেয়ার দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে বিক্ষোভ করেছেন নিয়োগ বঞ্চিত প্যানেল শিক্ষকরা। পরে সংসদ ভবনে গিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছেন তারা। এছাড়া গতকাল দুপুরে ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়ার হাতে বিভিন্ন দাবি সম্মিলিত স্মারকলিপি তুলে দেন শিক্ষক নেতারা। সকাল ৯টা থেকে নিয়োগ বঞ্চিত প্যানেল শিক্ষক পরিষদের ব্যানারে সাধারণ শিক্ষকরা মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও অধিদপ্তর ঘেরাও করেন। এরপর পুলিশ তাদের সেখান থেকে হটিয়ে দিলে তারা সংসদ অভিমুখে রওনা দেন।

আন্দোলনকারীরা বলেছেন, প্যানেলভুক্ত ২৮ হাজার শিক্ষকের মধ্যে রিট জয়ী ১৬ হাজার শিক্ষককে নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। সংসদেও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী বলেছেন, প্রাথমিকের ১৭ হাজার খালি পদে হাইকোর্টের রিট জয়ীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হবে। কিন্তু আদালতের রায় এবং মন্ত্রীর বক্তব্য উপেক্ষা করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২৮ হাজারের মধ্য থেকে মেধাক্রম অনুযায়ী ১৭ হাজার শিক্ষককে নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করে। এতে করে রিট জয়ী ১৬ হাজার শিক্ষকের মধ্যে ৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

সংগঠনটির কার্যকরী সদস্য আবদুল হালিম বলেন, শূন্য এবং সৃষ্ট পদসহ ৪০ হাজারের বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ খালি আছে। প্যানেলভুক্ত সবাইকে নিয়োগ দিলেও ১২ হাজার পদ খালি থাকবে। তিনি বলেন, হাইকোর্ট বলেছেন রিট জয়ী সবাইকে নিয়োগ দিতে। অধিদপ্তর নিয়োগ দিচ্ছে মেধানুযায়ী। এতে করে দেখা যাচ্ছে, চার বছর ধরে মামলা লড়ে রায় পেলো যারা, তারাই বঞ্চিত হচ্ছে।

প্যানেলভুক্তরা সবাই পর্যায়ক্রমে নিয়োগ পাবেন: প্যানেলভুক্ত প্রার্থীদের সবাই নিয়োগ পাচ্ছেন না বলা হচ্ছে- এ বিষয়ে জানতে চাইলে গতকাল সচিবালয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, আদালত মেধাতালিকা ধরে নিয়োগের কথা বলেছে। কিন্তু আদালতের রায়ে পরোক্ষভাবে সবাইকেই নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। মেরিট লিস্টে নিতে গেলে দেখা যায় কেউ রিট করে পেছনে আছে, কেউ মামলা না করেও সামনে রয়েছে। আমরা মনে করি ধীরে ধীরে সবাই নিয়োগ পেয়ে যাবে। এটা চলতে থাকবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *