নানা কৌশলে ও ছাত্রছায়ায় পার পেয়ে যাচ্ছে চোরেরা

দামুড়হুদার জগন্নাথপুর থেকে সিরাক সংস্থার গাছ চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে দুর্বৃত্তরা

 

স্টাফ রিপোর্টার: এনজিও সংস্থা সিরাকের লাগানো গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে দুর্বৃত্তরা। বিভিন্ন কৌশলে তারা এসব গাছ কেটে নিয়ে গেলেও তদারকির অভাবে পার পেয়ে যাচ্ছে অপরাধীরা। লাখ লাখ টাকার এসব গাছ রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছে অভিভাবকহীনের মতো। সিরাক সংস্থা থেকে অভিযোগ করা হলেও দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে এক সময় রাস্তা থেকে গাছ পুরো উধাও হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছে সিরাক সংস্থা।

জানা গেছে, ২০০৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে আর্থসামাজিক পল্লী উন্নয়ন সংস্থা সিরাক চুয়াডাঙ্গার বিভিন্ন এলাকায় ২ শ কিলোমিটার গাছ লাগায়। এরই অংশ হিসেবে দামুড়হুদা উপজেলার জগন্নাথপুরের নিকটবর্তী গছিয়ামোড় থেকে মাদরাসা হয়ে জগন্নাথপুর পর্যন্ত রাস্তার দু পাশে লাগানো হয় ইপিলইপিল, বাবলা, মহানিমসহ বেশ কিছু গাছ লাগানো হয়। নাম দেয়া হয় নাটুদহ বোয়ালমারী বনানয়ন সমিতি। সরকারের সাথে চুক্তি অনুযায়ী এ সমিতির গাছ উপকারভোগীরা পাবে ৬৫ ভাগ, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ ৫ ভাগ, সরকার ২০ ভাগ ও সিরাক সংস্থা শতকরা ১০ ভাগ অংশীদার। কিন্তু সম্প্রতি দুর্বত্তরা প্রায় রাতে ওই রাস্তার গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। কাটছে দিনদুপুরেও। নানা কৌশলে ও রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় পার পেয়ে যাচ্ছে তারা। গত ৯ সেপ্টেম্বর বেশ কিছু গাছ কাটে এলাকার একটি প্রভাবশালী পক্ষ। নিজেদের জমির ভেতরের গাছ দাবি করে তারা ওই গাছ কাটে। যা নাটুদহ মোনালের কাঠগোলায় পড়ে আছে। এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তারা রাস্তার জায়গা মাপজোখ করে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন। সমিতির সভাপতি চারুলিয়া গ্রামের আবুল কাশেম জানিয়েছেন এতো নজরদারি করেও গাছ চুরি থামানো যাচ্ছে না। এতে সমিতিসহ সরকার লোকসানের ভাগী হচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে পুলিশ প্রশাসক ব্যবস্থা নেবে বলে তিনি আশা করেন। এ ব্যাপারে তারা উদ্বেগ জানিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *