ধর্ষণের অভিযোগ তুলে স্কুলছাত্রীর পিতা বিপাকে : গ্রাম্য সালিসে উল্টো অর্থদণ্ড

 

স্টাফ রিপোর্টার: মহেশপুর দত্তনগর কারিঞ্চার দু স্ত্রীর স্বামী ৩ সন্তানের জনকেরই দাপট বেশি। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে বেকায়দায় পড়েছেন ধর্ষণের শিকার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর পিতা। গ্রামে সালিস করে মাতবররা অভিযুক্তের পক্ষেই অবস্থান নিয়ে ধর্ষকের পিতাকে ২ হাজার টাকা জরিমানাও করেছে। অর্ধশতাধিক ব্যক্তি ঘটনাকে মিথ্যা বলে দাবি করে কাগজে স্বাক্ষরও দিয়েছেন।

গ্রামে মাতবরদের পক্ষে পেয়ে অভিযুক্ত দু স্ত্রীর স্বামী ৩ সন্তানের জনক সেকেন্দার আলী উল্টো অভিযোগ তুলে বলেছে, ওই কিশোরী ঘরে ঢুকেছিলো চুরি করতে। বাড়ির লোকজন যখন চলে আসে তখন সে চৌকির নিচে লুকিয়ে পড়ে। পরে ওর মা খুঁজতে এলে সে চৌকির নিচ থেকে বের হয়।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ রাতে স্কুলছাত্রীকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শয্যাপাশে থাকা মাসহ নিকটজনেরা জানান, গ্রামেরই রুস্তম আলীর ছেলে সেকেন্দার স্কুলছাত্রীকে বাড়িতে ডাকে। ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর যখন কিশোরী তার মায়ের ডাক শোনে তখন দেখে সে চৌকির নিচে। সেখান থেকে উদ্ধার করে নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *