দৌলতপুরে ১ কোটি ৬৫ লাখ টাকা নিয়ে এনজিওর চেয়ার‌ম্যান উধাও

দৌলতপুর প্রতিনিধ: কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলায় গ্রাহকের এক কোটি ৬৫ লাখ টাকা আমানত নিয়ে গাঁ ঢাকা দিয়েছেন মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির এক চেয়ারম্যান। এ ব্যাপারে আমানতকারীরা টাকা ফেরতের জন্য ওই সংস্থার কার্যালয়ে গেলে তাদেরকে নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। এমনকি পুলিশে সোপর্দের মতো ঘটনা ঘটেছে।

প্রাপ্ত অভিযোগে জানা যায়, দু বছর আগে খলিশাকুণ্ডি ইউনিয়নের নজীবপুর গ্রামের চাঁদ আলীর ছেলে নয়ন আহমেদ ও তার দু বন্ধু আড়িয়া গ্রামের লাবলু ও ডাবলু মিলে সমবায় অধিদপ্তর থেকে মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির লাইসেন্স নিয়ে অধিক মুনাফা দেয়ার নাম করে প্রায় অর্ধশত গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় এক কোটি ৬৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। এরপর গ্রাকরা তাদের প্রয়োজনে টাকা উত্তোলন করতে চাইলে আজ নয় কাল করে গ্রাহকদের ফিরিয়ে দেন। কামালপুর গ্রামের আমানতকারী শাহ আলম কলিন্স জানান, তিনি তাদের প্রলোভনে পড়ে ৩ লাখ টাকা জমা করেন। এখন ব্যবসায়িক প্রয়োজনে টাকা ওঠাতে গেলে তারা বিভিন্নভাবে আমাকে দিনের পর দিন ঘোরাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানায়, গ্রাহকদের টাকা ফেরত না দিয়ে নয়ন গাঁ ঢাকা দিয়েছে। এদিকে শুক্রবার বড়গাংদিয়া এলাকার আমানতকারী শরীফ, হাসান ও খলিল টাকা ফেরত দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে তাদের বিরুদ্ধে থানায় মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির চেয়ারম্যান নয়ন আহমেদকে অপহরণ করা হয়েছে বলে গতকাল শনিবার দুপুরে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছেন নয়নের ছোটভাই সুমন। এ অভিযোগে পুলিশ আমানতকারী শরীফ, হাসান ও খলিলকে আটক করেছে। দৌলতপুর থানার ওসি আব্দুল খালেক জানান, গ্রাহকদের টাকা ফেরত দেয়ার ভয়ে নয়ন পালিয়ে গেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *