দেশি টুকরো

শিগগিরই ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ

স্টাফ রিপোর্টার: ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফলের জন্য অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। আগামী এপ্রিল মাসে এই ফলাফল প্রকাশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। প্রজ্ঞাপন জারির প্রায় দুই বছর পর এই বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক আজ রোববার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা এপ্রিল মাসে ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করব। আমরা চেষ্টা করেছি কম সময়ে বিসিএস পরীক্ষা শেষ করতে। এরই ধারাবাহিকতায় কাজ করে চলছি।’ বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের পরে নিয়োগ পেতে প্রার্থীদের একটা দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হয়। এ সময় তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও পুলিশি যাচাই–বাছাই হয়। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর প্রতিবেদন পাওয়া সাপেক্ষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় গেজেট বা প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করে। এরপর নিয়োগপ্রাপ্তদের পদায়ন করা হয়। ৩৪তম বিসিএসে পিএসসি থেকে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের প্রায় এক বছর পর নিয়োগপ্রাপ্তদের পদায়ন হয়। ৩৫তম বিসিএসে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের প্রায় নয় মাস পর নিয়োগ হয়। এখন ৩৬তম বিসিএসের প্রার্থীরা চূড়ান্ত নিয়োগের অপেক্ষায় আছেন। গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ৩৭তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়। লিখিত পরীক্ষা শেষ হয় গত বছরের ২৩ মে। এই পরীক্ষায় ৫ হাজার ৩৭৯ জন পাস করেন। ২০১৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নেন ২ লাখ ৪৩ হাজার ৪৭৬ জন পরীক্ষার্থী। প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় ৮ হাজার ৫২৩ জন উত্তীর্ণ হন। তবে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন ৮ হাজার ৩১ জন। প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা হিসেবে ১ হাজার ২২৬ জনকে নিয়োগ দিতে ৩৭তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিলো পিএসসি।

গাজীপুরে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ : গুলি-টিয়ারসেল

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পুলিশসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়। রোববার মৌচাকের কৌচাকুড়ি তেলিরচালায় ‘এটিএস অ্যাপারেলস লিমিটেডে’ এ ঘটনা ঘটে। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কারখানা ও গাড়ি ভাংচুর এবং সড়ক অবরোধ করেছে। শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের কয়েকদফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ গুলি ও টিয়ার সেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। আহতদের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকের কলেজ হাসপাতালসহ স্থানীয় কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গাজীপুর শিল্প পুলিশের পরিদর্শক সহিদ উল্লাহ, আন্দোলনরত শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানায়, বেশ কিছুদিন ধরে এটিএস অ্যাপারেলস লিমিটেডের শ্রমিকরা বেতন ভাতা মাসের ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধের দাবি জানিয়ে আসছিলো। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ তা পারছিল না। চলতি মাসের বেতন-ভাতাও ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধ না করায় শ্রমিকদের মাঝে অসন্তোষ দেখা দেয়।

পদ্মা সেতুতে বসলো তৃতীয় স্প্যান : দৃশ্যমান ৪৫০ মিটার

স্টাফ রিপোর্টার: স্বপ্নের পদ্মা সেতু তৈরিতে আরেক ধাপ এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। এবার পদ্মা সেতুর ৩৯ ও ৪০ নম্বর খুঁটির ওপর বসল তৃতীয় স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) ৭সি। এরই মধ্য দিয়ে সেতুটির ৪৫০ মিটার কাঠামো দৃশ্যমান হয়েছে। আজ রোববার সকাল ৬টা থেকেই শুরু হয় স্প্যান বসানোর আনুষাঙ্গিক কাজগুলো। সকাল ৯টার দিকে খুঁটির ওপর স্প্যান বসানোর মাধ্যমে দৃশ্যমান হয় প্রায় আধা কিলোমিটারের সেতু। এর আগে শনিবার বিকেলে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যান বহনকারী তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ভাসমান ‘তিয়ান ই’ ক্রেনটি ৩৯ ও ৪০ নম্বর খুঁটির এলাকায় পৌঁছায়। পদ্মা সেতু প্রকল্পে দায়িত্বীল প্রকৌশরীরা জানান, স্প্যান বহনকারী ক্রেনটিকে ৩৯ ও ৪০ নম্বর খুঁটির সামনে পজিশন অনুযায়ী আনা হয়। এর পর লিফটিং ক্রেনের সাহায্যে অস্থায়ী বেয়ারিংয়ের ওপর রাখা হয় স্প্যানটিকে। তবে স্থায়ীভাবে বসতে কয়েকদিন সময় লাগবে। এছাড়া স্প্যান ওঠানোর আগে যাবতীয় সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন করা হয়। ৭সি নম্বর স্প্যানটি শনিবার বিকেল ঠিক সাড়ে ৩টায় এখানে পৌঁছে। এর আগে শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে প্রায় পৌনে এক কিলোমিটার দূরে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর খুঁটির সামনে নোঙ্গর করা হয়েছিল। শনিবার এটি আবার এটি রওনা হয়ে গন্তব্যে পৌঁছায়। শনিবার বিকেলে জাহাজটি নোঙ্গরের পরপরই ১২টি অ্যাঙ্কর দিয়ে এটি শক্ত করে নোঙর করার কাজ শুরু হয়েছে। এর আগে শুক্রবার বেলা ১২টায় মাওয়ার কুমারভোগের বিশেষায়িত ইয়ার্ডের জেটি থেকে প্রায় ৩২শ’ টন ওজনের ভাসমান ক্রেনবাহী জাহাজটি এ স্প্যানটি পাজা করে তুলে নিয়ে রওয়ানা হয়। ৩৭, ৩৮ ও ৩৯ নম্বর খুঁটির দুটি স্প্যান বসানোর মাধ্যমে ৩০০ মিটার কাঠামো দৃশ্যমান হয়েছিল। ১ম স্প্যানটি স্থাপন করা হয় গত ৩০ সেপ্টেম্বর এবং দ্বিতীয় স্প্যানটি বসে গত ২৮ জানুয়ারি। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ক্ষমতার ভাসমান ক্রেনের এ জাহাজটি জাজিরা প্রান্তের এবার দ্রুত সময়ের মধ্যে যথাযথ স্থানে পৌঁছে যায়। এদিকে ৩৬শ টন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান ই’ নামের বিশাল এ জাহাজ চলাচলে পদ্মা নদীর পানির গভীরতা ঠিক রাখার জন্যে নির্দিষ্ট চ্যানেলে ড্রেজিং অব্যাহত ছিলো। এদিকে স্প্যান স্থাপনের পাশাপাশি অন্যান্য কাজও দ্রত গতিতে এগিয়ে চলেছে। ইতোমধ্যে নদীতে ১২২ পাইল স্থাপন হয়ে গেছে আরও ১১টি পাইলের বটম সেকশন সম্পন্ন হয়েছে। মাওয়া প্রান্তের ভায়াডাক্টের ১৭২টি পাইলের মধ্যে ৮৯টি পাইল বসে গেছে। অন্যান্য কাজও দ্রুত এগিয়ে চলেছে। এছাড়া ৪১ নম্বর খুঁটির কাজও এগিয়েছে। তাই পরবর্তীতে ৪ নম্বর স্প্যান বসানোর প্রস্তুতিও রয়েছে। তাছাড়া ৪২ নম্বর কাজও এগুচ্ছে। ওপরে উঠে গেছে মাওয়া প্রান্তের ৩ নম্বর খুঁটি। ৪ ও ৫ নম্বর খুঁটি ওপর দিকে উঠার পথে। এছাড়া ১৩, ১৪, ১৬, ১৭, ২১, ২২, ২৩, ৩৩, ৩৪ ও ৩৬ নম্বর খুঁটির কাজ এগিয় গেছে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২ খুঁটির ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। পদ্মা বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আটক ৩৯ বিদেশি নাগরিক মুক্ত

স্টাফ রিপোর্টার: বিনা অনুমতিতে কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রবেশের চেষ্টার অভিযোগে আটক ৩৯ বিদেশিকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের জানান, অঙ্গীকারনামা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে উখিয়ার শহীদ এ টি এম জাফর আলম সড়কের (কক্সবাজার-টেকনাফ সড়ক) মালভিটা এলাকায় তল্লাশির সময় ‘ওয়ার্ক পারমিট’ না থাকায় ৩৯ বিদেশিকে আটত করা হয়। ওসি জানান, বিকেল ৪টার দিকে বিদেশি নাগরিকদের ছেড়ে দেয়া হয়। তারা যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ফ্রান্স, তুরস্ক, মালয়েশিয়া, হল্যান্ড ও ডেনমার্কসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক। ট্যুরিস্ট ভিসায় এসব বিদেশি নাগরিক বাংলাদেশে অবস্থান করছিলেন। তারা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আন্তর্জাতিক সংস্থাসহ বিভিন্ন এনজিও সংস্থায় কর্মরত। তিনি বলেন, বিদেশি নাগরিকরা ট্যুরিস্ট ভিসায় এলেও কোনও ওয়ার্ক পারমিট ছিলো না। বিনা অনুমতিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রবেশের চেষ্টার অভিযোগে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছিলো। পরে তাদের কাছ থেকে অঙ্গীকারনামা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তাদের কর্মরত সংস্থাগুলোর স্ব স্ব প্রতিনিধিদের জিম্মায় এ অঙ্গীকারনামা নেয়া হয়।

গণহত্যা স্মরণে ২৫ মার্চ রাতে এক মিনিট ‘ব্ল্যাক আউট’ কর্মসূচি

স্টাফ রিপোর্টার: পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর গণহত্যা স্মরণে আগামী ২৫ মার্চ রাত ৯টা থেকে সারাদেশে এক মিনিটের জন্য ‘ব্ল্যাক আউট’ কর্মসূচি পালন করা হবে। গতকাল রোববার সচিবালয়ে এক সভা শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এ কথা জানান। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচিসহ বিভিন্ন বিষয়ে বৈঠকের সময় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ২৫ তারিখ রাতে বাতি নিভিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করবে দেশবাসী। তবে কেন্দ্র থেকে কোনো বিদ্যুৎ বন্ধ হবে না, ব্যক্তিপর্যায়ে সবাই তার বাতি নিভিয়ে দেবেন মাত্র এক মিনিটের জন্য। এটি প্রতীকী উদযাপন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *