দেশি টুকরো

ভাঙ্গায় ভুয়া এনএসআই কর্মকর্তাসহ আটক ২

স্টাফ রিপোর্টার: এনএসআইয়ের সহকারী পরিচালক সেজে প্রতারণার অভিযোগে এক মহিলাসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাতে ভাঙ্গা থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটকরা হলেন, উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের হাজরাকান্দা গ্রামের ভুয়া এনএসআই সোহাগ মোল্যা (৩০) ও তার সহযোগী নুরুল্লাগজ্ঞ ইউনিয়নের দক্ষিণকান্দা গঙ্গাদরদী গ্রামের সৌদি প্রবাসী এসকেনদার মিয়ার স্ত্রী সুবর্ণ খন্দকার (৪০)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোহাগ মোল্যা দীর্ঘদিন বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় এনএসআইয়ের সহকারী পরিচালক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে মোটাঅঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিলো। এর মধ্যে ভাঙ্গা বাজারের টাইলস ব্যবসায়ী মো. জিকরিয়া মোল্যাকে নারী দিয়ে কৌশলে কুষ্টিয়া জেলায় নিয়ে জোরপূর্বক সুবর্ণ খন্দকারকে বিয়ে করতে বাধ্য করে। একপর্যায়ে পিস্তল ঠেকিয়ে কাবিননামায়ও সই করিয়ে নেয়। এতে জিকরিয়া অসম্মতি জানালে তাকে দুদিন আটকে রেখে মারধর করে ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এ বিষয়টি নিয়ে ভাঙ্গা থানায় অভিযোগ করা হলে তদন্তে নামে পুলিশ। তদন্তে সোহাগ মোল্যার নানা অপকর্মের সত্যতা ধরা পড়ে। পরে তাদের দুজনকে আটক করে পুলিশ।

কাজী জামালউদ্দিন আহমেদ আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার: প্রবীণ অভিনেতা কাজী জামালউদ্দিন আহমেদ মারা গেছেন। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় না ফেরার দেশে চলে গেছেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। প্রয়াত কাজী জামালউদ্দিন আহমেদের ছেলে কাজী এম আহমেদ জানিয়েছেন, গতকাল শনিবার বাদ জোহর গুলশান কেন্দ্রীয় মসজিদে তার বাবার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপর জামালউদ্দিনের মরদেহ মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীর পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়।

ছোট পর্দায় বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন কাজী জামালউদ্দিন আহমেদ। তিনি প্রথম বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেছিলেন নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সঙ্গে। এরপর একই নির্মাতার আশিয়ান সিটির বিজ্ঞাপন করে দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করেন জামালউদ্দিন। ওই বিজ্ঞাপনচিত্রের ট্যাগ লাইন ছিলো ‘নাকে তেল দিয়ে ঘুমান’। বিজ্ঞাপনচিত্রের পাশাপাশি তিনি বেশ কিছু নাটকেও অভিনয় করেন।

 

২৮ বছর ধরে বন্ধ থাকা রাকসু নির্বাচন দিতে প্রস্তুত রাবি প্রশাসন

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (রাকসু) নির্বাচন ঝুলে আছে দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে। উচ্চ আদালতের নির্দেশে আগামী ছয় মাসের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের সময় বেঁধে দেয়া হলেও রাকসু নির্বাচন নিয়ে এখনো কোনো পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কবে রাকসু নির্বাচন দিবে সেটি নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়। এদিকে রাবি প্রসাসন রাকসু নির্বাচন দিতে প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক এম. আব্দুস সোবহান।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ১৯৫৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর প্রথম রাকসু নির্বাচন হয় ১৯৫৬-৫৭ মেয়াদে। ওইসময় রাকসুর নাম ছিলো রাজশাহী ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (রাসু)। আইয়ুব খানের শাসনামলে এর কার্যক্রম বন্ধ থাকার পর ১৯৬২ সালে এটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (রাকসু) নামে যাত্রা শুরু করে। এখন পর্যন্ত রাকসু ১৪ বার নির্বাচন হয়েছে। সর্বশেষ নির্বাচন হয় ১৯৮৯-৯০ মেয়াদে। তবে ১৯৭০-৭২ সাল পর্যন্ত নির্বাচন হয়নি। এরপরে সামরিক শাসনামলে ১৯৭৫ থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত এবং ১৯৮১ থেকে ১৯৮৮ সাল পর্যন্ত বন্ধ ছিলো রাকসুর কার্যক্রম। ১৯৯৩ সালে তৎকালীন উপাচার্য আনিসুর রহমান এক আদেশ বলে রাকসুর কার্যকরী সংসদ বাতিল ঘোষণা করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *