দুদকে ৩ হাজার অভিযোগ খারিজ

স্টাফ রিপোর্টার: দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) গত ২ বছরে ৩ হাজার ৫৩টি দুর্নীতির অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে। এর মধ্যে কমিশন মাত্র ৫২১টি অভিযোগ গ্রহণ করেছে। যে মামলাগুলোয় অভিযোগ গৃহীত হয়নি, তার অধিকাংশই ছিলো ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতা ও দলটির সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগসমূহ নথিভুক্ত করা হয়েছিলো, সেগুলোর তদন্ত চলছে। ২০১২ সালে দুদক ১ হাজার ৮৪২টি দুর্নীতির অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছিলো। এর মধ্যে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন পেশের আগেই ১ হাজার ৪৭টি অভিযোগ বাতিল করা হয়। প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করার পর আরও ৩৮২টি অভিযোগ বাতিল করা হয়। একই বছর ১১৬ ব্যক্তিকে তাদের সম্পদের হিসাব পেশ করতে নোটিশ জারি করে কমিশন। ২০১৩ সালে ১ হাজার ৬২৪টি অভিযোগের মধ্যে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন পেশের আগেই দুর্নীতির ১ হাজার ২১৫টি অভিযোগ বাতিল করে দুদক। ৪০৯টি অভিযোগ বাতিল করা হয় প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করার পর। গত বছর ৩৫০টি অভিযোগ গ্রহণ করে কমিশন। ১০৫ জনকে সম্পদের হিসাব দাখিলের নোটিশ জারি করে দুদক। ট্র্যান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, মূলত দুটি কারণে দুদক অভিযোগসমূহ বাতিল করেছে। একটি হচ্ছে, তাদের পেশাগত অদক্ষতার কারণে অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থতা বা বিভিন্ন মহল থেকে রাজনৈতিক চাপ। তিনি বলেন, তদন্ত কর্মকর্তারা ব্যক্তিগতভাবে অনৈতিক সুবিধাদি পাওয়ায় কিছু অভিযোগ বাতিল করা হয়ে থাকতে পারে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *