দামুড়হুদা ফকিরপাড়ায় দু শতাধিক আর্সেনিকে আক্রান্ত

মানুষের কল্যাণে বাস্তবায়িত হলেও অকেজো গভীর নলকূপটি উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী বিভাগের মেরামতের কোন উদ্যোগ নেই

আটকবর প্রতিনিধি: দামুড়হুদা উপজেলাধীন বোয়ালমারী ফকিরপাড়া গ্রামে প্রায় ২শ জন আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়েছে। কিন্তু মানুষের কল্যাণের জন্য উন্মুক্ত আর্সেনিক ও আয়রণমুক্ত নিরাপদ খাবার পানি সরবরাহের গভীর নলকূপটি বিগত ২০০৭ সালে স্থাপিত হলেও মাস কয়েক পরেই তা অকেজো হয়ে পড়ে। ফলে এলাকাবাসী, পথচারী ও সাধারণ মানুষের নিরাপদ খাবার পানির অভাবে নিরুপায় হয়ে আর্সেনিকযুক্ত পানি পান করছে।

জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলাধীন নতিপোতা ইউনিয়নের বোয়ালমারী ফকিরপাড়া গ্রামে রাস্তার পাশে এ প্রকল্পটির অবস্থান। এ প্রকল্পটি ২০০৭ সালে বাস্তবায়ন ও নির্মাণকাজ শেষে এলাকার মানুষের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। কিন্তু কয়েক মাস পানি ওঠার পর তা অকেজো হয়ে পড়ে রয়েছে। আর্সেনিকযুক্ত পানি পান করে আর্সেনিক রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে অনেকেই। বোয়ালমারী গ্রামের আমিনুল ইসলাম জানান, এ গ্রামের নিজ নিজ বাড়ির টিউবওয়েলের আর্সেনিকযুক্ত পানি পান করে দু শতাধিক মানুষ আর্সেনিকে আক্রাক্ত হয়েছে এবং এ যাবত প্রায় ৫/৬ জন মৃত্যুবরণ করেছে। আর্সেনিকে আক্রান্তরা হলো- আমিনুল ইসলাম (৩৪), ফারুক হোসেন (৩০), মো. আব্দুল মজিদ(৪৫), মমিন হোসেন (৩০), হালিম (৪০), ওহাব আলী ( ৪৫), আব্দুল গফুর (৪৫), আব্দুর রশিদ ( ৪৫), আব্দুস সালাম (৩৫), লালচাঁদ (৩০), রাবিয়া খাতুন (৫০), জহুরা খাতুন (৪৫), মাছুরা খাতুন(৩০), আয়েশা খাতুনসহ (৪৫) আরও অনেকে। আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত যারা মারা গেছেন তারা হলেন- মুস্তাকিন (৪০), আব্দুল হান্নান ( ৫০), ইন্নাল (৩৫), ছামসুল (৩৩) ও তেতুল (৪৫)।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বহুব্যয়ে নির্মিত সরকারি এ সম্পদটি এলাকার মানুষের কল্যাণে বাস্তবায়িত হলেও উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী বিভাগের রক্ষণাবেক্ষণ, সঠিক তদারকি ও মেরামতের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। বোয়ালমারী ফকিরপাড়ার গভীর নলকূপটি মেরামত করা হলে গ্রামের মানুষ আর্সেনিকমুক্ত পানি পান করতে পারবে। যার ফলে আর নতুন করে কেউ আর্সেনিক রোগে আক্রান্ত হবে না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *