দামুড়হুদায় সাপে দংশিত জামাইকে মেরে ফেললেন কবিরাজ শ্বশুর এলাহী মণ্ডল : শ্বশুরের শাস্তি দাবি গ্রামবাসীর

 

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদার গোবিন্দহুদা স্কুলপাড়ার সাপে কাটা রোগী আব্দুস সালামকে (৩৭) তার কবিরাজ শ্বশুর উজিরপুরের এলাহী মণ্ডল মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগকারী গ্রামবাসী তার শ্বশুরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে।

গ্রামবাসী জানায়, দামুড়হুদার গোবিন্দহুদা স্কুলপাড়ার মৃত. ইবাদত মণ্ডলের ছেলে আব্দুস সালাম (৩৭) গতকাল রোববার গ্রামের বেলেপোতা মাঠে ধান কাটতে যায়। ধান কাটার এক পর্যায়ে দুপুর ১টার দিকে সালাম দেখে একটু দূরে সাপ আর বেজি কামড়াকামড়ি করছে। এ দেখে সে একটি লাঠি হাতে সাপ ও বেজির দিকে এগিয়ে যায় সালাম। তাকে দেখে বেজিটি পালিয়ে গেলে সে লাঠি দিয়ে সাপটি মারতে থাকে। এক পর্যায়ে সাপটি নেতিয়ে পড়লে সে সাপটি ধরতে যায়। এমন সময় সাপটি ছোবল মেরে তার ডান হাতে একটি আঙুল মুখের ভেতর নিয়ে কামড়ে ধরে থাকে। এ সময় সালামের চিৎকারে ওই মাঠে কাজ করা কৃষকরা ছুটে এসে সাপটি মেরে ফেলে সালামের আঙুলটি সাপের মুখের ভেতর থেকে বের করে এবং তার হাতে বাঁধন দেয়। ওই অবস্থায় সালাম দামুড়হুদার উজিরপুর গ্রামে তার সাপুড়ে কবিরাজ শ্বশুর এলাহী মণ্ডলের বাড়ি যায়। শ্বশুর এলাহী মণ্ডল দ্রুত তার জামাইয়ের হাতের বাঁধন খুলে দিয়ে ৪/৫ ঘণ্টাব্যাপি ঝাঁড়ফুঁকসহ বিভিন্ন কবিরাজি চিকিৎসা শুরু করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সালাম নিস্তেজ হয়ে জ্ঞান হারালে তাকে তার শ্বশুর পক্ষের লোকজন তড়িঘড়ি করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *