দামুড়হুদায় মাদরাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ের অভিযোগে মোজাম্মেল শিশির পুলিশের খাঁচায়

 

 

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় খুশি নামের এক নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ে করার অভিযোগে অভিযুক্ত সাংবাদিক মোজাম্মেল শিশিরকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দর্শনা বাজার এলাকা থেকে দর্শনা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করে দামুড়হুদা মডেল থানায় হস্তান্তর করে। মোজাম্মেলকে আটকের পর পুলিশ তাকে সাথে নিয়ে মাদরাসা ছাত্রীকে উদ্ধারে মাঠে নামার এক পর্যায়ে বিকেলে মাদরাসা ছাত্রী নিজেই স্বশরীরে দামুড়হুদা মডেল থানায় হাজির হয়। আজ বুধবার তাদের উভয়কেই আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে জানিয়েছেন দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি লিয়াকত হোসেন।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মে শনিবার রাতে দামুড়হুদা উপজেলার কুড়ুলগাছি গ্রামের আব্দুর রশিদের মাদরাসা পড়ুয়া নাবালিকা মেয়ে খুশিকে (১৬) ২য় বিয়ে করে দু সন্তানের জনক একই উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে কথিত সাংবাদিক মোজাম্মেল শিশির। এ ঘটনায় বাল্যবিয়ের অপরাধে অভিযুক্ত মোজাম্মেলকে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি তোলে এলাকাবাসি। ঘটনার ৪ দিনের মাথায় গত ৩ জুন নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রীর ভাই আব্দুস সাত্তার বাদী হয়ে অভিযুক্ত মোজাম্মেলসহ তার তিন ভাইয়ের নামে দামুড়হুদা মডেল থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরর পর থেকে মোজাম্মেল ও খুশি দু জনেই আত্মগোপনে ছিলো। গতকাল দুপরে গোপন সংবাদ পেয়ে দর্শনা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যরা মোজাম্মেলকে আটক করে। এ দিকে নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রী খুশি নিজেকে সাবালিকা দাবি করে বলেছে আমি মা বাবা ভাই বোন কাউকে চিনিনে। আমি শুধু মোজাম্মেলকে চিনি। তার স্ত্রী সন্তান আছে জেনে শুনে ২য় বিয়ের কারণ জানতে চাইলে সে বলে আমি সব জেনে শুনেই করেছি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *