দামুড়হুদায় নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ে : ইউএনও’র দৃষ্টি আকর্ষণ

 

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় খুশি নামের এক নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ে করার অপরাধে অভিযুক্ত দু সন্তানের জনক মোজাম্মেল শিশিরসহ তার তিন ভাইয়ের নামে থানায় মামলা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে নাবালিকা মাদরাসা ছাত্রী খুশির ভাই আব্দুস সাত্তার বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় ওই মামলা দায়ের করেন। তিনি তুলে বলেন, আমি দু দিন আগে মামলা করেছি। অখচ ওই মামলার কাগজটি নাকি এখনও ওসির টেবিল পর্যন্ত পৌঁছায়নি। আমার নাবালিকা বোনকে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ে করলো। এর কি কোনো বিচার হবে না? নাকি সাংবাদিক পরিচয়ে পার পেয়ে যাবে। এ বিষয়ে কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এএসআই শামীমা সুলতানা বলেন, বাদী গত মঙ্গলবার দুপুরে তিন জনের নামে অপহরণ মামলা দিয়ে যান। ওই সময় ওসি সাহেব ছিলেন না। ওনাকে সন্ধ্যায় আসতে বলা হয়েছিলো। কিন্ত ওনি আর আসেননি। সে কারণেই মামলার কপিটি আমার কাছেই রয়ে গেছে। এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি লিয়াকত হোসেন বলেন, মামলা করেছে কি-না আমার জানাছিলো না। যদি মামলা করে থাকে তবে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মে শনিবার রাতে দামুড়হুদা উপজেলার কুড়ুলগাছি গ্রামের আব্দুর রশিদের মাদরাসা পড়ুয়া নাবালিকা  মেয়ে খুশিকে (১৬) ফুঁসলিয়ে ভাগিয়ে নিয়ে ২য় বিয়ে করে দু সন্তানের জনক একই উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে কথিত সাংবাদিক মোজাম্মেল শিশির। এ ঘটনায় এলাকাবাসী দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এবং  বাল্য বিয়ের অপরাধে অভিযুক্ত মোজাম্মেলকে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *