দামুড়হুদায় ধর্ষণের শিকার বাকপ্রতিবন্ধীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন : ধর্ষকসহ দুজন জেলহাজতে

স্টাফ রিপোর্টার: দামুড়হুদায় ধর্ষণের শিকার বাকপ্রতিবন্ধী শিশুর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে সংশ্লিষ্ট একজন ডাক্তার জানিয়েছেন। ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার মুরগি ফার্মের কর্মচারী আমির হোসেন ও ধর্ষণ কাজে সহযোগিতার অভিযোগে গ্রেফতার ফার্ম মালিক মন্টুকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
জানা গেছে, গত সোমবার সকালে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কুড়ুলগাছির মনিরুজ্জামান মন্টুর মুরগি খামারের কর্মচারী আমির হোসেন বাকপ্রতিবন্ধী এক শিশুকে (১০) ধর্ষণ করে। ওইদিনই ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে দামুড়হুদা থানায় মামলা করেন। সন্ধ্যায় ধর্ষক আমির ও ফার্ম মালিক মন্টুকে পুলিশ গ্রেফতার করে। রক্তাক্ত অবস্থায় ধর্ষণের শিকার শিশুকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার সকালে শিশুর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয় বলে হাসপাতালের গাইনি কনসালটেন্ট ডা. হোসনে জারি তহমিনা জানান। তিনি বলেন, শিশুর দেহে প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। এদিকে গ্রেফতারকৃত আমির হোসেন ও মন্টুকে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আমলি আদালত দামুড়হুদার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

 

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *