দামুড়হুদার গোচিয়ারপাড়ার চার সন্তানের জননীর লাশ উদ্ধার

স্বামী পরিত্যক্তাকে ধর্ষ শেষে শ্বাসরোধ করে হত্যা : নেপথ্যে পরকয়া

 

দর্শনা অফিস/ভ্রাম্যমা প্রতিনিধি: দামুড়হুদার গোচিয়ারপাড়ায় বাড়ির পেছনের বাঁশবাগান থেকে শাহানারা নামের এক মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। চার সন্তানের জননী শাহারানাকে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। হত্যার নেপথ্যে পরকীয়া রয়েছে বলে গুঞ্জন উঠেছে। পুলিশ পরকীয়া প্রেমিককে চিহ্নিত করে গ্রেফতারে জাল বিস্তার করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শাহানারার লাশ উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্ত শেষে শাহনারার লাশ দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার ভোরে দামুড়হুদার নতিপোতা ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গোচিয়ারপাড়ার আ. আজিজ খানের স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে চার সন্তানের জননী শাহানারা খাতুনের লাশ বাড়ির পেছনের বাঁশবাগানে পড়ে থাকতে দেখে প্রতিবেশীরা। লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়। পরে খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা এসএসসি নওশের আলী, দামুড়হুদা থানার অফিসার ইনচার্জ আহসান হাবীব সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে যান ঘটনাস্থলে। নিহত শাহানারার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গতপরশু বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে শাহানারাকে কে বা কারা মোবাইলফোনে ডাকলে সে বাড়ির বাইরে যায়। রাত কেটে গেলেও বাড়ি ফেরেনি শাহানারা। সকালে বাঁশবাগানে তার লাশের সন্ধান মেলে। এলাকাবাসী বলেছে, শাহানার আলোচিত মেয়ে ছিলো। তার বিরুদ্ধে অভিযোগের কমতি ছিলো না। অভিযোগ উঠেছে, শাহানারার সাথে প্রতিবেশী একজনের সাথে পরকীয়া প্রেমসম্পর্ক ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে পরকীয়া প্রেমিক তাকে হত্যা করতে পারে। পুলিশ বলেছে, শাহানারাকে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। থানার ওসি আহসান হাবীব বলেছেন, পরকীয়া প্রেমিককে গ্রেফতারের জন্য ইতোমধ্যেই জালবিস্তার করা হয়েছে। পুলিশ সকাল ন’টার দিকে শাহানারার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। বেলা ১১টার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ গ্রহণ করেন স্বজনেরা। এ ঘটনায় শাহানারার ভাই আজাদ বাদী হয়ে গতকালই দামুড়হুদা থানায় দায়ের মামলা করেছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *