দর্শনার সীমান্ত চৌকি পরিদর্শনে বিজিবি মহাপরিচালক আবুল হোসেন

 

যেকোনো সময়ের চেয়ে সীমান্ত হত্যা এখন অনেক কম

দর্শনা অফিস: যেকোনো সময়ের চেয়ে সীমান্ত হত্যা এখন অনেক কম বলে দাবি করেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন। তিনি জানান, সীমান্ত হত্যা শূন্যে কোঠায় আনতে বিজিবি-বিএসএফ যৌথভাবে কাজ করছে। গতকাল বুধবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় বিজিবির নবনির্মিত সীমান্ত চৌকি (বিওপি) উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। বিজিবি-বিএসএফ’র শীর্ষ পর্যায়ে দফায় দফায় বৈঠকের পরও সীমান্ত হত্যা কেন বন্ধ হচ্ছে না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে বিজিবির মহাপরিচালক আবুল হোসেন বলেন, প্রতিটি ঘটনায় বিজিবির পক্ষ থেকে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়। বিএসএফ’র পক্ষ থেকে প্রতিবারই দাবি করা হয় আত্মরক্ষার্থেই তারা গুলি চালিয়েছে। বিজিবির এই শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিজিবি সঠিক অবস্থানেই আছে। নদী ও পাহাড়বেষ্টিত সীমান্তে কঠোর প্রহরার পরও চোখ এড়িয়ে কিছু রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করেছে। আলোচনার মাধ্যমে তাদের নিজ দেশে পাঠানো হবে।

দর্শনার জয়নগর সীমান্ত পরিদর্শনকালে শূন্যরেখায় উপস্থিত বিএসএফ জওয়ানদের হাতে মিষ্টি ও উপহার সামগ্রী তুলে দেন বিজিবির মহাপরিচালক আবুল হোসেন। বিএসএফ সদস্যদের সাথে সৌজন্যমূলক সাক্ষাত করেন তিনি। ভারতের বিএসএফর ১১৩ ব্যাটালিয়নের কমান্ডার মাহেন্দ্র কুমার ও সেকেন্ড ইন কমান্ড সতীশ চন্দ্র আবুল হোসেনকে স্বাগত জানান। বিকেল সাড়ে তিনটায় তিনি বিজিবির দর্শনা কোম্পানি সদরের নবনির্মিত বিওপি ভবন উদ্বোধন করেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন বিজিবির যশোর রিজিওনের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার কর্নেল ওয়াহেদুজ্জামান, কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মাহবুবুর রহমান, খুলনা সেক্টর কমান্ডার কর্নেল ইকবাল হোসেন, চুয়াডাঙ্গা-৬ ব্যাটালিয়নের পরিচালক কর্নেল আমির মজিদ, ৪৭ ব্যাটালিয়নের পরিকালক লে. কর্নেল শহিদুল ইসলাম, ৫৮ ব্যাটালিয়নের লে. কর্নেল জিল্লুর রহমান প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *