থাই পুলিশ কর্মকর্তারা হিজাব ব্যবহারের অনুমতি পেলেন

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: থাইল্যান্ডের মুসলিম মহিলা পুলিশ কর্মকর্তারা এখন থেকে দায়িত্ব পালনের সময় হিজাব বা মাথায় স্কার্ফ ব্যবহার করতে পারবেন। দেশটির কেন্দ্রীয় ইসলামী কমিটির এক অনুরোধ আমলে নিয়ে থাই রাজকীয় পুলিশ কর্তৃপক্ষ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মুসলিম পুলিশ কর্মকর্তাদের অনুরোধ বিবেচনা করার জন্য থাই রাজকীয় পুলিশ একটি কমিটি গঠন করেছিলো। রাজকীয় পুলিশের উপ-প্রধান জেনারেল জ্যাট মোংকোলহুত্থি এ কমিটির প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি এ সম্পর্কে বলেন, তার কমিটি বিষয়টি অনুমোদন করার পর বিষয়টিকে জাতীয় পুলিশ প্রধানের কাছে পাঠিয়েছে। জেনারেল মোংকোলহুত্থি বলেন, পুলিশের ইউনিফর্মের একই রঙের স্কার্ফ ব্যবহার করতে হবে মুসলিম মহিলা পুলিশ কর্মকর্তাদের। এছাড়া স্কার্ফটিকে জামার কলারের নীচে আটকে রাখতে হবে। সেইসঙ্গে ইউনিফর্মের উপর তার একই রঙের লম্বা জামাও ব্যবহার করতে পারবেন। জেনারেল মোংকোলহুত্থি বলেছেন, হিজাব পরলে যেহেতু মহিলা পুলিশ কর্মকর্তাদের ডিউটি পালনে কোনো অসুবিধা হবে না তাই তাদেরকে এ অনুমতি দেয়া হয়েছে। থাইল্যান্ডের পাত্তানি প্রদেশের কেন্দ্রীয় ইসলামি কমিটি এবং ওই প্রদেশের সংসদ সদস্যদের পক্ষ থেকে মুসলিম নারী পুলিশ কর্মকর্তাদের হিজাব পরার অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছিলো। থাই পুলিশে কর্মরত মুসলিম নারী কর্মকর্তাদের মধ্যে পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, তাদের মধ্যে শতকরা অন্তত ৬০ ভাগ হিজাব পরতে চান। ৬ কোটি ৬০ লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত থাইল্যান্ডে প্রায় ৪০ লাখ মুসলমান রয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *