ঝিনাইদহের শৈলকুপায় কয়েক গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ

আহত ১৫, বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ, গুলিবিদ্ধ ৬, পুলিশের গুলি বর্ষণ
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় দুটি ইউনিয়নের কয়েক গ্রামবাসীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। প্রায় ৩ ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫ আহত ও ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এ সময় বাড়ি-ঘর, দোকান-পাট ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। ১০টি দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট হয় আগুন দেয়া হয় ৩টি বাড়িতে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
এলাকাবাসী জানায়, গতকাল সোমবার ভোর ৭টার দিকে ৮নং ধলহরা চন্দ্র ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা মতিয়ার রহমান এবং ১০নং বগুড়া ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলামের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে আওধা-কমলনগর বাজার ও মাঠের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। ঢাল, সড়কি, রামদা ও দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে ধলহরাচন্দ্র ও বগুড়া ইউনিয়নের ৫-৬টি গ্রামের বাসিন্দারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় আহত হয় জাকির, সদর, আমানত, কুদ্দুস, সাইফুল, শরিফুল, হাফিজুর আজম, জাহিদুল, রাসেল, হাবীব দেলোয়ার ও রাজুসহ ১৫-২০ জন। আহতদের শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এদিকে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট বাড়ি ঘরের আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।
শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ তোজাম্মেল হক জানান, মাঠের পেয়াজ লাগানো ও নিজেদের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কয়েক হাজার মানুষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শতাধিক রাউন্ড গুলি ছোড়া হয় পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *